ঢাকা ০৯:৪০ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

৩০০ কোটির সম্পত্তির জন্য শ্বশুরকে খুন, এক কোটি রুপি ব্যয় পুত্রবধূর!

  • আপডেট সময় : ০১:৩৮:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪
  • ১০ বার পড়া হয়েছে

বিদেশের খবর ডেস্ক : ভারতের নাগপুরে ৮২ বছর বয়সী এক ব্যক্তির হিট-অ্যান্ড-রান মামলার তদন্তে উন্মোচিত হয়েছে একটি ভয়াবহ ষড়যন্ত্র। অভিযোগ করা হচ্ছে, ৩০০ কোটি রুপির পারিবারিক সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে এই হত্যার পরিকল্পনা করেছিল নিহতের পুত্রবধূ। হত্যার জন্য খুনিদের সঙ্গে ১ কোটি রুপি ব্যয় করেছিল আর্চনা মনীশ পুট্টেওয়ার নামের ওই গৃহবধূ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে। শ্বশুর পুরুষোত্তম পুট্টেওয়ার গাড়ি চাপায় নিহত হওয়ার প্রায় ১৫ দিন পর গত সপ্তাহে গ্রেফতার করা হয়েছে আর্চনাকে। গ্রেফতার হওয়া নারী স্থানীয় নগর পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী পরিচালক।
বার্তা সংস্থা পিটিআইকে এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, হত্যাকাণ্ডের জন্য আর্চনা পুট্টেওয়ার লোক ভাড়া করে এবং প্রায় ১ কোটি রুপি ব্যয় করে। সন্দেহভাজন খুনিদের একটি পুরনো গাড়ি কিনতে অর্থ দেয় আর্চনা। ওই গাড়ি দিয়েই তার শ্বশুরকে চাপা দিয়ে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। হত্যাকে একটি দুর্ঘটনা হিসেবে দেখানোর জন্যই এমন পরিকল্পনা করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, এর উদ্দেশ্য ছিল ৩০০ কোটি রুপির সম্পত্তির নিয়ন্ত্রণ নেওয়া।
ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেছেন, ৫৩ বছর বয়সী আর্চনা তার স্বামীর গাড়িচালক বাগদে এবং অপর দুই অভিযুক্ত নীরজ নিমজে ও সচিন ধার্মিকের সঙ্গে মিলে এই হত্যার পরিকল্পনা করেছিল। পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে হত্যাসহ কয়েকটি ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে। দুটি গাড়ি, সোনার গহনা এবং মোবাইলফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।
পুলিশের তদন্তে উঠে এসেছে, ঘটনার দিন, পুরুষোত্তম পুট্টেওয়ার তার স্ত্রী শকুন্তলাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। একটি অস্ত্রোপচারের পর সেরে উঠছিলেন শকুন্তলা। ফেরার পথে ভাড়া করা গাড়িটি তাকে চাপা দিয়ে চলে যায়। পুরুষোত্তমের ছেলে এবং আর্চনার স্বামী মনীশ পেশায় একজন ডাক্তার।
এদিকে, হত্যাকাণ্ডের তদন্তে আর্চনা পুট্টেওয়ারের বিরুদ্ধে নগর পরিকল্পনা বিভাগের কাজেও গুরুতর অনিয়ম পাওয়া গেছে। অনেক অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও রাজনৈতিক যোগাযোগের কারণে তার বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে তদন্তে উঠে এসেছে। হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়ার পর তার কর্মস্থলে অনিয়ম নিয়ে আরও গভীর তদন্ত শুরু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

ট্যাগস :

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

আমানতের অর্থ লুটে খাচ্ছে ব্যাংক : পিআরআই

৩০০ কোটির সম্পত্তির জন্য শ্বশুরকে খুন, এক কোটি রুপি ব্যয় পুত্রবধূর!

আপডেট সময় : ০১:৩৮:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

বিদেশের খবর ডেস্ক : ভারতের নাগপুরে ৮২ বছর বয়সী এক ব্যক্তির হিট-অ্যান্ড-রান মামলার তদন্তে উন্মোচিত হয়েছে একটি ভয়াবহ ষড়যন্ত্র। অভিযোগ করা হচ্ছে, ৩০০ কোটি রুপির পারিবারিক সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে এই হত্যার পরিকল্পনা করেছিল নিহতের পুত্রবধূ। হত্যার জন্য খুনিদের সঙ্গে ১ কোটি রুপি ব্যয় করেছিল আর্চনা মনীশ পুট্টেওয়ার নামের ওই গৃহবধূ। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এ খবর জানিয়েছে। শ্বশুর পুরুষোত্তম পুট্টেওয়ার গাড়ি চাপায় নিহত হওয়ার প্রায় ১৫ দিন পর গত সপ্তাহে গ্রেফতার করা হয়েছে আর্চনাকে। গ্রেফতার হওয়া নারী স্থানীয় নগর পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী পরিচালক।
বার্তা সংস্থা পিটিআইকে এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, হত্যাকাণ্ডের জন্য আর্চনা পুট্টেওয়ার লোক ভাড়া করে এবং প্রায় ১ কোটি রুপি ব্যয় করে। সন্দেহভাজন খুনিদের একটি পুরনো গাড়ি কিনতে অর্থ দেয় আর্চনা। ওই গাড়ি দিয়েই তার শ্বশুরকে চাপা দিয়ে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। হত্যাকে একটি দুর্ঘটনা হিসেবে দেখানোর জন্যই এমন পরিকল্পনা করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে, এর উদ্দেশ্য ছিল ৩০০ কোটি রুপির সম্পত্তির নিয়ন্ত্রণ নেওয়া।
ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলেছেন, ৫৩ বছর বয়সী আর্চনা তার স্বামীর গাড়িচালক বাগদে এবং অপর দুই অভিযুক্ত নীরজ নিমজে ও সচিন ধার্মিকের সঙ্গে মিলে এই হত্যার পরিকল্পনা করেছিল। পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে হত্যাসহ কয়েকটি ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে। দুটি গাড়ি, সোনার গহনা এবং মোবাইলফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।
পুলিশের তদন্তে উঠে এসেছে, ঘটনার দিন, পুরুষোত্তম পুট্টেওয়ার তার স্ত্রী শকুন্তলাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। একটি অস্ত্রোপচারের পর সেরে উঠছিলেন শকুন্তলা। ফেরার পথে ভাড়া করা গাড়িটি তাকে চাপা দিয়ে চলে যায়। পুরুষোত্তমের ছেলে এবং আর্চনার স্বামী মনীশ পেশায় একজন ডাক্তার।
এদিকে, হত্যাকাণ্ডের তদন্তে আর্চনা পুট্টেওয়ারের বিরুদ্ধে নগর পরিকল্পনা বিভাগের কাজেও গুরুতর অনিয়ম পাওয়া গেছে। অনেক অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও রাজনৈতিক যোগাযোগের কারণে তার বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে তদন্তে উঠে এসেছে। হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়ার পর তার কর্মস্থলে অনিয়ম নিয়ে আরও গভীর তদন্ত শুরু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।