ঢাকা ০৭:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সন্তানের হাতে স্মার্টফোন দেওয়ার আগে সেটিংস বদলে নিন

  • আপডেট সময় : ১০:৫৬:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • ৪৮ বার পড়া হয়েছে

প্রযুক্তি ডেস্ক : বর্তমানে সব বয়সীরাই স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন। বাবা-মা সন্তানদের হাতে তুলে দিচ্ছেন স্মার্টফোন। করোনাকালীন যেই অভ্যাসটা তৈরি হয়েছিল, অনলাইনে ক্লাস, গ্রুপ স্টাডি তা এখনো যায়নি। তবে সন্তানের হাতে ফোন তুলে দিচ্ছেন। আপনার সন্তান শুধু পড়াশোনার কাজেই নয় ফোনে হয়তো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া ব্বহার করছে। খেয়াল রাখছেন তো?
সন্তানের স্মার্টফোন ব্যবহারের দিকে নজর রাখুন। বিশেষ করে তারা কার সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় মিশছে তা খেয়াল রাখুন। স্মার্টফোনের কোন কোন অ্যাপ ব্যবহার করছে তা ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করুন। প্রাপ্তবয়স্কদের কনটেন্ট স্মার্টফোনের দৌলতে অ্যাক্সেস করা সহজ। তাই বাচ্চার হাতে ফোন দেওয়ার আগে শুধু কয়েকটা সেটিংস অন করা দরকার, যাতে তাদের এ ধরনের জিনিস দেখার সম্ভাবনা না থাকে, অন্তত অভিভাবকদের ফোন থেকে।
> এজন্য সবার প্রথমে অ্যান্ড্রয়েডে গুগল প্লে রেসট্রিকশন চালু করতে হবে। এটি বাচ্চাদের এমন অ্যাপ, গেম এবং অন্যান্য ওয়েব রিসোর্স ডাউনলোড করতে বাধা দেবে যা তার বয়সের জন্য উপযুক্ত নয়। এজন্য প্রথমে গুগল প্লে স্টোরে যেতে হবে। তারপরে বাম কোণে সেটিংসে যেতে হবে। এখানে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ অপশন পাওয়া যাবে।
> এটিতে ট্যাপ করলে একটি পিন সেট করতে বলা হবে। অভিভাবক এই পিন সেট করে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ সেটিংস পরিবর্তন করতে পারেন৷ একবার পিন সেট হয়ে গেলে, প্রতিটি বিভাগের জন্য স্টোর-ভিত্তিক বয়স সেট করা যাবে। শুধু এই পিনটি বাচ্চাদের বললে চলবে না।
> সোশ্যাল মিডিয়া সেটিংসইউটিউব এবং ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ অপশন রয়েছে। অভিভাবকরা যদি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপগুলোতে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ চালু করেন, তাহলে তারা সহজেই সন্তানের কার্যকলাপ ট্র্যাক করতে পারবেন এবং তাদের ভুল জিনিসগুলো দেখা থেকে বিরত রাখতে পারবেন।
> একটি পৃথক ই-মেল আইডিঅনেক সময়, সুবিধার জন্য, অভিভাবকরা সন্তানদের তাদের নিজস্ব ই-মেইল আইডি ব্যবহার করে সব অ্যাপ চালানোর অনুমতি দেন। কিন্তু শিশুদের জন্য একটি ব্যক্তিগত ই-মেইল আইডি তৈরি করা বরং উচিত হবে। এর মাধ্যমে, অভিভাবকরা শুধু সন্তানদের ভুল বিজ্ঞাপন থেকেই দূরে রাখতে পারবেন না, বরং সহজেই সন্তানদের ইন্টারনেট কার্যকলাপ ট্র্যাক করতে পারবেন।
> ইন্টারনেট নিরাপত্তা টিপসের পাশাপাশি বাচ্চাদের ইন্টারনেট নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতন করাও অভিভাবকের কর্তব্য। শিশুদের ভাইরাস, ম্যালওয়্যার, সাইবার অপরাধ এবং অনলাইন পেমেন্ট সম্পর্কিত জালিয়াতি সম্পর্কে জানিয়ে রাখলেও অনেকটা কাজ হবে। সূত্র: ইউনিসেফ

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

সন্তানের হাতে স্মার্টফোন দেওয়ার আগে সেটিংস বদলে নিন

আপডেট সময় : ১০:৫৬:৩৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

প্রযুক্তি ডেস্ক : বর্তমানে সব বয়সীরাই স্মার্টফোন ব্যবহার করছেন। বাবা-মা সন্তানদের হাতে তুলে দিচ্ছেন স্মার্টফোন। করোনাকালীন যেই অভ্যাসটা তৈরি হয়েছিল, অনলাইনে ক্লাস, গ্রুপ স্টাডি তা এখনো যায়নি। তবে সন্তানের হাতে ফোন তুলে দিচ্ছেন। আপনার সন্তান শুধু পড়াশোনার কাজেই নয় ফোনে হয়তো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া ব্বহার করছে। খেয়াল রাখছেন তো?
সন্তানের স্মার্টফোন ব্যবহারের দিকে নজর রাখুন। বিশেষ করে তারা কার সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় মিশছে তা খেয়াল রাখুন। স্মার্টফোনের কোন কোন অ্যাপ ব্যবহার করছে তা ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করুন। প্রাপ্তবয়স্কদের কনটেন্ট স্মার্টফোনের দৌলতে অ্যাক্সেস করা সহজ। তাই বাচ্চার হাতে ফোন দেওয়ার আগে শুধু কয়েকটা সেটিংস অন করা দরকার, যাতে তাদের এ ধরনের জিনিস দেখার সম্ভাবনা না থাকে, অন্তত অভিভাবকদের ফোন থেকে।
> এজন্য সবার প্রথমে অ্যান্ড্রয়েডে গুগল প্লে রেসট্রিকশন চালু করতে হবে। এটি বাচ্চাদের এমন অ্যাপ, গেম এবং অন্যান্য ওয়েব রিসোর্স ডাউনলোড করতে বাধা দেবে যা তার বয়সের জন্য উপযুক্ত নয়। এজন্য প্রথমে গুগল প্লে স্টোরে যেতে হবে। তারপরে বাম কোণে সেটিংসে যেতে হবে। এখানে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ অপশন পাওয়া যাবে।
> এটিতে ট্যাপ করলে একটি পিন সেট করতে বলা হবে। অভিভাবক এই পিন সেট করে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ সেটিংস পরিবর্তন করতে পারেন৷ একবার পিন সেট হয়ে গেলে, প্রতিটি বিভাগের জন্য স্টোর-ভিত্তিক বয়স সেট করা যাবে। শুধু এই পিনটি বাচ্চাদের বললে চলবে না।
> সোশ্যাল মিডিয়া সেটিংসইউটিউব এবং ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ অপশন রয়েছে। অভিভাবকরা যদি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপগুলোতে ‘প্যারেন্টাল কন্ট্রোলস’ চালু করেন, তাহলে তারা সহজেই সন্তানের কার্যকলাপ ট্র্যাক করতে পারবেন এবং তাদের ভুল জিনিসগুলো দেখা থেকে বিরত রাখতে পারবেন।
> একটি পৃথক ই-মেল আইডিঅনেক সময়, সুবিধার জন্য, অভিভাবকরা সন্তানদের তাদের নিজস্ব ই-মেইল আইডি ব্যবহার করে সব অ্যাপ চালানোর অনুমতি দেন। কিন্তু শিশুদের জন্য একটি ব্যক্তিগত ই-মেইল আইডি তৈরি করা বরং উচিত হবে। এর মাধ্যমে, অভিভাবকরা শুধু সন্তানদের ভুল বিজ্ঞাপন থেকেই দূরে রাখতে পারবেন না, বরং সহজেই সন্তানদের ইন্টারনেট কার্যকলাপ ট্র্যাক করতে পারবেন।
> ইন্টারনেট নিরাপত্তা টিপসের পাশাপাশি বাচ্চাদের ইন্টারনেট নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতন করাও অভিভাবকের কর্তব্য। শিশুদের ভাইরাস, ম্যালওয়্যার, সাইবার অপরাধ এবং অনলাইন পেমেন্ট সম্পর্কিত জালিয়াতি সম্পর্কে জানিয়ে রাখলেও অনেকটা কাজ হবে। সূত্র: ইউনিসেফ