ঢাকা ০১:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শীতে লালশাক কেন খাবেন?

  • আপডেট সময় : ১০:৫৬:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২৩
  • ৩৩ বার পড়া হয়েছে

লাইফস্টাইল ডেস্ক : শীতের হাওয়া বইতে শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সবুজ শাক-সবজির আধিক্য দেখা যায়, যা আমাদের মৌসুমী খাদ্যের প্রধান উপাদান হয়ে ওঠে। সরিষা শাক এবং পালং শাক সাধারণত বেশি খাওয়া হয়। মেথি এবং বথুয়া শাকও খাওয়া হয়। এই সবুজ শাকগুলোর অনেক উপকারিতা রয়েছে। তবে শুধু সবুজ শাক নয়, লাল রঙের শাক লালশাকেও আছে প্রচুর পুষ্টিগুণ। শীতের সময়ে সবুজ শাকের পাশাপাশি পাতে থাকুক লালশাকও।
লালশাক: লালশাকে ভিটামিন এ এবং সি, ফাইবার, ফোলেট, আয়রন এবং ক্যালসিয়ামসহ অনেক পুষ্টি থাকে। যা আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারিতা নিয়ে আসে। নিয়মিত লালশাক খেলে তো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। শীতকালীন ডায়েটে লালশাক রাখার উপকারিতা চলুন জেনে নেওয়া যাক-
১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: লালশাকে প্রচুর প্রোটিন এবং ভিটামিন সি রয়েছে। যা শীতের মাসগুলোতে সক্রিয়ভাবে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে। এটি মৌসুমী রোগের বিরুদ্ধে কার্যকর ঢাল হিসেবে কাজ করে। তাই শীতের সময়ে লালশাক খেতে হবে নিয়মিত।
২. হজমক্ষমতা বাড়ায়: যারা হজমের সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য একটি উপকারী খাবার হতে পারে লালশাক। কারণ লালশাকের উচ্চ ফাইবার উপাদান পাচনতন্ত্রকে সুস্থ রাখতে কাজ করে, এটি কোষ্ঠকাঠিন্য এবং গ্যাস সংক্রান্ত সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়।
৩. চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে: ভিটামিন এ স্বাস্থ্যকর চোখ বজায় রাখার জন্য অপরিহার্য। লালশাকে প্রচুর ভিটামিন এ রয়েছে। নিয়মিত এই শাক খেলে তা চোখের বিভিন্ন সমস্যা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। তাই চোখ ভালো রাখতে এই শাক পাতে রাখতে হবে।
৪. রক্ত বিশুদ্ধ করে: লালশাক রক্ত পরিশোধনকারী বৈশিষ্ট্যের অধিকারী। এই শাক আপনার শীতকালীন খাদ্যতালিকায় যোগ করলে তা স্বাস্থ্যকর ত্বক এবং বিশুদ্ধ রক্ত তৈরিতে অবদান রাখে। বুঝতেই পারছেন, লাল রঙের এই শাক আপনার জন্য কতটা প্রয়োজনীয়?
৫. হিমোগ্লোবিনের মাত্রা উন্নত করে: লৌহ সমৃদ্ধ লালশাক রক্তস্বল্পতার রোগীদের জন্য উপকারী একটি খাবার। নিয়মিত লালশাক খেলে তা হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে, এটি রক্তের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে। তাই হিমোগ্লোবিনের মাত্রা উন্নত করার জন্য নিয়মিত লালশাক খেতে হবে।
৬. ক্ষুধা বৃদ্ধি করে: খাবারে অরুচি হলে তা আপনার স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলবে। তাই এমন খাবার খেতে হবে যা ক্ষুধা বাড়াতে কাজ করে। তেমনই একটি খাবার হলো লালশাক। এই শাক আপনার ক্ষুধা বৃদ্ধিতে কাজ করবে। তাই নিজেকে সুস্থ রাখতে লালশাক রাখতে হবে খাবারের তালিকায়।

 

 

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

শীতে লালশাক কেন খাবেন?

আপডেট সময় : ১০:৫৬:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২৩

লাইফস্টাইল ডেস্ক : শীতের হাওয়া বইতে শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সবুজ শাক-সবজির আধিক্য দেখা যায়, যা আমাদের মৌসুমী খাদ্যের প্রধান উপাদান হয়ে ওঠে। সরিষা শাক এবং পালং শাক সাধারণত বেশি খাওয়া হয়। মেথি এবং বথুয়া শাকও খাওয়া হয়। এই সবুজ শাকগুলোর অনেক উপকারিতা রয়েছে। তবে শুধু সবুজ শাক নয়, লাল রঙের শাক লালশাকেও আছে প্রচুর পুষ্টিগুণ। শীতের সময়ে সবুজ শাকের পাশাপাশি পাতে থাকুক লালশাকও।
লালশাক: লালশাকে ভিটামিন এ এবং সি, ফাইবার, ফোলেট, আয়রন এবং ক্যালসিয়ামসহ অনেক পুষ্টি থাকে। যা আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারিতা নিয়ে আসে। নিয়মিত লালশাক খেলে তো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। শীতকালীন ডায়েটে লালশাক রাখার উপকারিতা চলুন জেনে নেওয়া যাক-
১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: লালশাকে প্রচুর প্রোটিন এবং ভিটামিন সি রয়েছে। যা শীতের মাসগুলোতে সক্রিয়ভাবে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে। এটি মৌসুমী রোগের বিরুদ্ধে কার্যকর ঢাল হিসেবে কাজ করে। তাই শীতের সময়ে লালশাক খেতে হবে নিয়মিত।
২. হজমক্ষমতা বাড়ায়: যারা হজমের সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য একটি উপকারী খাবার হতে পারে লালশাক। কারণ লালশাকের উচ্চ ফাইবার উপাদান পাচনতন্ত্রকে সুস্থ রাখতে কাজ করে, এটি কোষ্ঠকাঠিন্য এবং গ্যাস সংক্রান্ত সমস্যা থেকে মুক্তি দেয়।
৩. চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে: ভিটামিন এ স্বাস্থ্যকর চোখ বজায় রাখার জন্য অপরিহার্য। লালশাকে প্রচুর ভিটামিন এ রয়েছে। নিয়মিত এই শাক খেলে তা চোখের বিভিন্ন সমস্যা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। তাই চোখ ভালো রাখতে এই শাক পাতে রাখতে হবে।
৪. রক্ত বিশুদ্ধ করে: লালশাক রক্ত পরিশোধনকারী বৈশিষ্ট্যের অধিকারী। এই শাক আপনার শীতকালীন খাদ্যতালিকায় যোগ করলে তা স্বাস্থ্যকর ত্বক এবং বিশুদ্ধ রক্ত তৈরিতে অবদান রাখে। বুঝতেই পারছেন, লাল রঙের এই শাক আপনার জন্য কতটা প্রয়োজনীয়?
৫. হিমোগ্লোবিনের মাত্রা উন্নত করে: লৌহ সমৃদ্ধ লালশাক রক্তস্বল্পতার রোগীদের জন্য উপকারী একটি খাবার। নিয়মিত লালশাক খেলে তা হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে, এটি রক্তের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে। তাই হিমোগ্লোবিনের মাত্রা উন্নত করার জন্য নিয়মিত লালশাক খেতে হবে।
৬. ক্ষুধা বৃদ্ধি করে: খাবারে অরুচি হলে তা আপনার স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলবে। তাই এমন খাবার খেতে হবে যা ক্ষুধা বাড়াতে কাজ করে। তেমনই একটি খাবার হলো লালশাক। এই শাক আপনার ক্ষুধা বৃদ্ধিতে কাজ করবে। তাই নিজেকে সুস্থ রাখতে লালশাক রাখতে হবে খাবারের তালিকায়।