The Daily Ajker Prottasha

যুক্তরাষ্ট্রে ৫জি’র প্রবর্তন দুই সপ্তাহ পেছালো দুই শীর্ষ মোবাইল সেবাদাতা

0 0
Read Time:4 Minute, 43 Second

প্রযুক্তি ডেস্ক : বাণিজ্যিক ৫জি প্রযুক্তির প্রচলন পিছিয়ে দিতে রাজি হয়েছে দুই শীর্ষ মার্কিন প্রতিষ্ঠান। প্রথমে মার্কিন জনপ্রতিনিধিদের আহ্বান প্রত্যাখ্যান করলেও, ৫জি’র প্রচলনে অপেক্ষা করতে রাজি হয়েছে এটিঅ্যান্ড ও ভেরাইজন।
সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ দুই মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান এটিঅ্যান্ডটি এবং ভেরাইজনকে চিঠি লিখে ৫জি প্রযুক্তির বাণিজ্যিক প্রচলন দুই সপ্তাহ পেছানোর আহ্বান জানিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ)’ ব্যবস্থাপক স্টিভ ডিকসন এবং পরিবহনমন্ত্রী পিট বুটিজেজ। প্রথম অবস্থায় ওই আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছিল উভয় প্রতিষ্ঠান।
যুক্তরাষ্ট্রে ৫জি প্রযুক্তির বাণিজ্যিক প্রচলন নিয়ে মূল আপত্তি তুলেছে দেশটির এভিয়েশন শিল্প। উড়োজাহাজের স্পর্শকাতর যন্ত্রাংশের উপর ওই প্রযুক্তির বিরূপ প্রভাবের আশঙ্কা তাদের। অন্যদিকে, ৫জি প্রযুক্তির বৈশ্বিক মান নির্ধারণে মূল ভূমিকা রাখতে চাইছে মার্কিন মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। দ্রুততম সময়ে এ কাজে সফল হলে ৫জি প্রযুক্তির বৈশ্বিক বাজারে নেতৃস্থানীয় অবস্থান তৈরি করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র।
৫জি’র প্রচলন পিছিয়ে দেওয়ার পরিবর্তে ছয় মাস গুরুত্বপূর্ণ এয়ারপোর্টের আশপাশে অস্থায়ীভাবে ৫জি সেবা সীমিত রাখার প্রস্তাব দিয়েছিল দুই প্রতিষ্ঠান। উড়োজাহাজের স্পর্শকাতর যন্ত্রপাতির উপর সি-ব্যান্ড স্পেকট্রাম ৫জি প্রযুক্তির বিরূপ প্রভাবের আশঙ্কায় প্রায় একই ধরনেই পদক্ষেপ নিয়েছে ফ্রান্সও।
তবে, সোমবার দিনের শেষে এসে দুই সপ্তাহ অপেক্ষা করতে রাজি হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান দুটি। যুক্তরাষ্ট্রের এভিয়েশন শিল্পের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান এবং এফএএ’র আশঙ্কা উড়োজাহাজের রেডিও অ্যালটিটিউড মিটারের মতো গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রাংশের কার্যক্ষমতায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে ৫জি প্রযুক্তি। এই আশঙ্কায় ডিসেম্বর মাসেই মার্কিন পরিবহন মন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছিলেন শীর্ষ দুই উড়োজাহাজ নির্মাতা এয়ারবাস ও বোয়িং-এর প্রধান নির্বাহী। বুটিজেজের কাছে লেখা চিঠিতে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ‘এয়ারলাইনস ফর আমেরিকা’র গবেষণা থেকে পাওয়া তথ্য উল্লেখ করেছেন দুই প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তা। গবেষণা প্রতিবেদন বলছে, ‘ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ)’র ৫জি নীতিমালা ২০১৯ সালে কার্যকর হলে প্রায় তিন লাখ ৪৫ হাজার যাত্রীবাহী ফ্লাইট এবং পাঁচ হাজার চারশ’ কার্গো ফ্লাইট বিলম্বিত বা বাতিল হতো। পরিবহনমন্ত্রী বুটিজেজ-এর অনুরোধ গ্রহণ করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এটিঅ্যান্ডটি’র এক মুখপাত্র। তবে, আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে ওই মুখপাত্র বলেছেন, “আমরা জানি যে এভিয়েশন শিল্প এবং ৫জি’র পক্ষে সহাবস্থান সম্ভব এবং আরো সহযোগিতা ও কারিগরি বিবেচনার ভিত্তিতে যে কোনো সমস্যা দূর করা সম্ভব হবে।” ৫ জানুয়ারিতেই ৫জি প্রচলনের অবস্থান থেকে সরে আসায় উভয় প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানিয়েছে এফএএ।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

Leave a Reply

Your email address will not be published.