ঢাকা ১০:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

মানি লন্ডারিং মামলায় লা মেরিডিয়ান হোটেলের মালিক আমিন আহমেদ কারাগারে

  • আপডেট সময় : ০২:৩৯:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • ১২ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে দুর্নীতি দমন কমিশনের করা মামলায় অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি লা মেরিডিয়ান হোটেলের মালিক আমিন আহমেদকে কারাগারে পাঠিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।
ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন গতকাল বুধবার এ আদেশ দেন বলে জানিয়েছেন দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর।
মামলায় বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আবদুল হাই ওরফে বাচ্চুসহ আরও পাঁচজন আসামি। এই ছয়জনের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে ২০২৩ সালের ২ অক্টোবর দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক নুরুল হুদা বাদী হয়ে এ মামলা করেন। পিপি মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর বলেন, ‘সম্প্রতি আপিল বিভাগ আমিন আহমেদকে সাত দিনের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেন। তিনি আজ আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। আদালত তা নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।’
এই মামলায় আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন আমিন আহমেদ। গত ১০ জুন শুনানি শেষে তাকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। পাশাপাশি এসময় তাকে হয়রানি বা গ্রেপ্তার না করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে দুদক আপিল বিভাগে আবেদন করে। গত ১২ জুন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে দুদকের আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। এর ধারাবাহিকতায় ৩০ জুন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ আমিন আহমেদকে সাত দিনের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেন। দুদকের এই মামলায় ছয় আসামি হলেন— বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হাই ওরফে বাচ্চু, তার স্ত্রী শিরিন আক্তার, আবদুল হাইয়ের ভাই শেখ শাহরিয়ার ওরফে পান্না, আবদুল হাইয়ের মেয়ে শেখ রাফা হাই, ছেলে শেখ ছাবিদ হাই ও দলিলদাতা আমিন আহমেদ। মামলার অভিযোগে বলা হয়, আবদুল হাই নিজ নামে এবং তার স্ত্রী ও ছেলেমেয়ের নামে ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট বাজার এলাকায় ৩০ কাঠার মতো জমি কেনেন। ওই জমির প্রকৃত মূল্য ছিল ১১০ কোটি টাকা। তবে বাচ্চু জমির দর দেখান মাত্র ১৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা। জমির দাম কম দেখিয়ে ৯৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা মানি লন্ডারিং করা হয়েছে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়, যা মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন অনুযায়ী অপরাধ। ২০২৩ সালের ২ অক্টোবর আবদুল হাই, আমিন আহমেদসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় দুদক।
প্রসঙ্গত, বাগেরহাট-১ আসন থেকে ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টির মনোনয়নে সংসদ সদস্য হন শেখ আবদুল হাই বাচ্চু। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার প্রথম মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর ওই বছরের সেপ্টেম্বরে বেসিক ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে তিন বছরের জন্য নিয়োগ পান তিনি। অন্যদিকে লা মেরিডিয়ানের হোটেলের মালিকানা কোম্পানি বেস্ট হোল্ডিংসের চেয়ারম্যান আমিন আহমেদ। মেট্রো গ্রুপের একটি সহযোগী কোম্পানি হিসেবে ২০০৬ সালে যাত্রা শুরু করে বেস্ট হোল্ডিংস। নির্মাণ, রিয়েল এস্টেট, কৃষিভিত্তিক শিল্প, হসপিটালিটি, শিক্ষা ও বিজ্ঞাপনী বাজারে এই কোম্পানির ব্যবসা রয়েছে।

 

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

আমানতের অর্থ লুটে খাচ্ছে ব্যাংক : পিআরআই

মানি লন্ডারিং মামলায় লা মেরিডিয়ান হোটেলের মালিক আমিন আহমেদ কারাগারে

আপডেট সময় : ০২:৩৯:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে দুর্নীতি দমন কমিশনের করা মামলায় অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি লা মেরিডিয়ান হোটেলের মালিক আমিন আহমেদকে কারাগারে পাঠিয়েছে ঢাকার একটি আদালত।
ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন গতকাল বুধবার এ আদেশ দেন বলে জানিয়েছেন দুদকের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর।
মামলায় বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ আবদুল হাই ওরফে বাচ্চুসহ আরও পাঁচজন আসামি। এই ছয়জনের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে ২০২৩ সালের ২ অক্টোবর দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক নুরুল হুদা বাদী হয়ে এ মামলা করেন। পিপি মাহমুদ হোসেন জাহাঙ্গীর বলেন, ‘সম্প্রতি আপিল বিভাগ আমিন আহমেদকে সাত দিনের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেন। তিনি আজ আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। আদালত তা নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।’
এই মামলায় আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন আমিন আহমেদ। গত ১০ জুন শুনানি শেষে তাকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। পাশাপাশি এসময় তাকে হয়রানি বা গ্রেপ্তার না করতে নির্দেশ দেওয়া হয়। হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে দুদক আপিল বিভাগে আবেদন করে। গত ১২ জুন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে দুদকের আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। এর ধারাবাহিকতায় ৩০ জুন শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ আমিন আহমেদকে সাত দিনের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেন। দুদকের এই মামলায় ছয় আসামি হলেন— বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হাই ওরফে বাচ্চু, তার স্ত্রী শিরিন আক্তার, আবদুল হাইয়ের ভাই শেখ শাহরিয়ার ওরফে পান্না, আবদুল হাইয়ের মেয়ে শেখ রাফা হাই, ছেলে শেখ ছাবিদ হাই ও দলিলদাতা আমিন আহমেদ। মামলার অভিযোগে বলা হয়, আবদুল হাই নিজ নামে এবং তার স্ত্রী ও ছেলেমেয়ের নামে ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট বাজার এলাকায় ৩০ কাঠার মতো জমি কেনেন। ওই জমির প্রকৃত মূল্য ছিল ১১০ কোটি টাকা। তবে বাচ্চু জমির দর দেখান মাত্র ১৫ কোটি ২৫ লাখ টাকা। জমির দাম কম দেখিয়ে ৯৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা মানি লন্ডারিং করা হয়েছে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়, যা মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন অনুযায়ী অপরাধ। ২০২৩ সালের ২ অক্টোবর আবদুল হাই, আমিন আহমেদসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় দুদক।
প্রসঙ্গত, বাগেরহাট-১ আসন থেকে ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টির মনোনয়নে সংসদ সদস্য হন শেখ আবদুল হাই বাচ্চু। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার প্রথম মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর ওই বছরের সেপ্টেম্বরে বেসিক ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে তিন বছরের জন্য নিয়োগ পান তিনি। অন্যদিকে লা মেরিডিয়ানের হোটেলের মালিকানা কোম্পানি বেস্ট হোল্ডিংসের চেয়ারম্যান আমিন আহমেদ। মেট্রো গ্রুপের একটি সহযোগী কোম্পানি হিসেবে ২০০৬ সালে যাত্রা শুরু করে বেস্ট হোল্ডিংস। নির্মাণ, রিয়েল এস্টেট, কৃষিভিত্তিক শিল্প, হসপিটালিটি, শিক্ষা ও বিজ্ঞাপনী বাজারে এই কোম্পানির ব্যবসা রয়েছে।