ঢাকা ১১:০৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

বিশ্বের প্রথম ‘মিস এআই’ সুন্দরী প্রতিযোগিতা

  • আপডেট সময় : ১২:৫৫:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

প্রত্যাশা ডেস্ক : বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন (এআই) সুন্দরী প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফ্যানভু। এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে বিভিন্ন প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান তাদের তৈরি এআই সুন্দরীদের নাম নিবন্ধন করেছে। এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া সেরা সুন্দরী বাছাইয়ের জন্য এআইয়ের চেহারা, আচরণ, অনলাইন উপস্থিতি ও প্রভাবের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।
প্রতিযোগিতায় যে এআই সেরা সুন্দরী হিসেবে বিবেচিত হবে, তাকে ২০ হাজার মার্কিন ডলার পুরস্কার দেওয়া হবে। এ পুরস্কারের নাম দেওয়া হয়েছে ফ্যানভু ওয়ার্ল্ড এআই ক্রিয়েটর অ্যাওয়ার্ডস (ডব্লিউএআইসিএ)। এ প্রতিযোগিতায় ‘মিস এআই’ নির্বাচিত হতে ইতিমধ্যে ১ হাজার ৫০০ প্রতিযোগীর নাম জমা পড়েছে। এর মধ্যে শীর্ষ ১০টি এআই সুন্দরীর একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা সামনে এসেছে। এ তালিকা থেকে শীর্ষ তিনটি এআইকে সেরা সুন্দরীর তালিকায় রাখা হবে।
এ তালিকায় রয়েছে কেনজা লাইলি, আলিয়া লু, অলিভিয়া সি, অ্যান কারডি, জারা শতাভারি, আয়ানা রেইনবো, লালিনা, সেরেন আই, আসেনা ইলিক ও এলিজা খানের নাম। এই শীর্ষ ১০ সুন্দরী এআই তালিকায় বাংলাদেশি একটি এআইও স্থান পেয়েছে। এর নাম এলিজা খান। এটি ফ্যাশনবোধসম্পন্ন এআই হিসেবে এর পরিচিতি তুলে ধরেছে। ইনস্টাগ্রামে এর ১৩ হাজার অনুসারী রয়েছে। এ ছাড়া মরক্কোর কেনজা লাইলির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ১ লাখ ৯০ হাজার অনুসারী রয়েছে। মরক্কো সংস্কৃতির এই এআইয়ের উদ্দেশ্য মধ্যপ্রাচ্য ও মরক্কোর নারীদের ক্ষমতায়নে উদ্বুদ্ধ করা। আলিয়া লু মূলত জাপানি ও আফ্রো ব্রাজিলিয়ান আর্টিস্ট। বিভিন্ন আলোকচিত্রে পারফরম্যান্সের জন্য এই এআই পরিচিত। অলিভিয়া সির পরিচিতিতে বলা হয়েছে, এটি পর্তুগালের একটি ডিজিটাল ভ্রমণকারী এআই। ইতিমধ্যে এআইটির ইনস্টাগ্রামে ১০ হাজারের বেশি অনুসারী রয়েছে। এর নির্মাতা অলিভিয়ার মধ্যে ডিজিটাল ও মানবীর নানা অভিজ্ঞতার মিশ্রণ ঘটিয়েছেন। অ্যান কারডি মূলত ফ্রান্সের এআই। এটি সেখানকার পর্যটন, সংস্কৃতির নানা বিষয় তুলে ধরে। জারা শতাভারি ভারতীয় এআই। এটি নারীস্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় প্রাকৃতিক নানা উপাদানের প্রচার করে থাকে। এ ছাড়া নারীর হরমোনজনিত ভারসাম্যহীনতার বিষয়ে শিক্ষা দেয়। রোমানিয়ার এআই আইয়ানা রেইনবো। এর ৩ হাজার ২০০ অনুসারী রয়েছে। এটি সমাজে নারীর অন্তর্ভুক্তির বিষয়টির পক্ষে প্রচারের কাজ করে। ফরাসি এআই ইনফ্লুয়েন্সার হিসেবে কাজ করে লালিনা। এটি নারীর প্রতি সহানুভূতি নিয়ে কাজ করে। সেরেন আই তুরস্কের একটি সুন্দরী এআই। এটি তুরস্কের ইতিহাস ও সংস্কৃতি নিয়ে শিক্ষা দেয়। তুরস্কের আরেকটি সুন্দরী এআই হচ্ছে আসেনা ইলিক। এটি মূলত বিনোদন দিতে কাজ করে।

ট্যাগস :

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

আমানতের অর্থ লুটে খাচ্ছে ব্যাংক : পিআরআই

বিশ্বের প্রথম ‘মিস এআই’ সুন্দরী প্রতিযোগিতা

আপডেট সময় : ১২:৫৫:১৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪

প্রত্যাশা ডেস্ক : বিশ্বের প্রথম কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন (এআই) সুন্দরী প্রতিযোগিতা আয়োজন করেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফ্যানভু। এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে বিভিন্ন প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান তাদের তৈরি এআই সুন্দরীদের নাম নিবন্ধন করেছে। এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া সেরা সুন্দরী বাছাইয়ের জন্য এআইয়ের চেহারা, আচরণ, অনলাইন উপস্থিতি ও প্রভাবের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।
প্রতিযোগিতায় যে এআই সেরা সুন্দরী হিসেবে বিবেচিত হবে, তাকে ২০ হাজার মার্কিন ডলার পুরস্কার দেওয়া হবে। এ পুরস্কারের নাম দেওয়া হয়েছে ফ্যানভু ওয়ার্ল্ড এআই ক্রিয়েটর অ্যাওয়ার্ডস (ডব্লিউএআইসিএ)। এ প্রতিযোগিতায় ‘মিস এআই’ নির্বাচিত হতে ইতিমধ্যে ১ হাজার ৫০০ প্রতিযোগীর নাম জমা পড়েছে। এর মধ্যে শীর্ষ ১০টি এআই সুন্দরীর একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা সামনে এসেছে। এ তালিকা থেকে শীর্ষ তিনটি এআইকে সেরা সুন্দরীর তালিকায় রাখা হবে।
এ তালিকায় রয়েছে কেনজা লাইলি, আলিয়া লু, অলিভিয়া সি, অ্যান কারডি, জারা শতাভারি, আয়ানা রেইনবো, লালিনা, সেরেন আই, আসেনা ইলিক ও এলিজা খানের নাম। এই শীর্ষ ১০ সুন্দরী এআই তালিকায় বাংলাদেশি একটি এআইও স্থান পেয়েছে। এর নাম এলিজা খান। এটি ফ্যাশনবোধসম্পন্ন এআই হিসেবে এর পরিচিতি তুলে ধরেছে। ইনস্টাগ্রামে এর ১৩ হাজার অনুসারী রয়েছে। এ ছাড়া মরক্কোর কেনজা লাইলির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ১ লাখ ৯০ হাজার অনুসারী রয়েছে। মরক্কো সংস্কৃতির এই এআইয়ের উদ্দেশ্য মধ্যপ্রাচ্য ও মরক্কোর নারীদের ক্ষমতায়নে উদ্বুদ্ধ করা। আলিয়া লু মূলত জাপানি ও আফ্রো ব্রাজিলিয়ান আর্টিস্ট। বিভিন্ন আলোকচিত্রে পারফরম্যান্সের জন্য এই এআই পরিচিত। অলিভিয়া সির পরিচিতিতে বলা হয়েছে, এটি পর্তুগালের একটি ডিজিটাল ভ্রমণকারী এআই। ইতিমধ্যে এআইটির ইনস্টাগ্রামে ১০ হাজারের বেশি অনুসারী রয়েছে। এর নির্মাতা অলিভিয়ার মধ্যে ডিজিটাল ও মানবীর নানা অভিজ্ঞতার মিশ্রণ ঘটিয়েছেন। অ্যান কারডি মূলত ফ্রান্সের এআই। এটি সেখানকার পর্যটন, সংস্কৃতির নানা বিষয় তুলে ধরে। জারা শতাভারি ভারতীয় এআই। এটি নারীস্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় প্রাকৃতিক নানা উপাদানের প্রচার করে থাকে। এ ছাড়া নারীর হরমোনজনিত ভারসাম্যহীনতার বিষয়ে শিক্ষা দেয়। রোমানিয়ার এআই আইয়ানা রেইনবো। এর ৩ হাজার ২০০ অনুসারী রয়েছে। এটি সমাজে নারীর অন্তর্ভুক্তির বিষয়টির পক্ষে প্রচারের কাজ করে। ফরাসি এআই ইনফ্লুয়েন্সার হিসেবে কাজ করে লালিনা। এটি নারীর প্রতি সহানুভূতি নিয়ে কাজ করে। সেরেন আই তুরস্কের একটি সুন্দরী এআই। এটি তুরস্কের ইতিহাস ও সংস্কৃতি নিয়ে শিক্ষা দেয়। তুরস্কের আরেকটি সুন্দরী এআই হচ্ছে আসেনা ইলিক। এটি মূলত বিনোদন দিতে কাজ করে।