ঢাকা ১০:৪৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

ফোন চার্জিংয়ের সময় এমন ভুল করছেন না তো?

  • আপডেট সময় : ১০:২৫:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪
  • ৯ বার পড়া হয়েছে

প্রযুক্তি ডেস্ক : ফোন চার্জিংয়ের বিষয়টি সবার দৈনন্দিন রুটিনে সহজ হলেও একটি দরকারি কাজ। একইসঙ্গে ফোনের ব্যাটারির দীর্ঘমেয়াদি সক্ষমতা পেতে ব্যবহারকারীরা চিন্তায় থাকেন। চার্জিংয়ের কিছু অভ্যাস বদলে ফেলার মাধ্যমে ফোনের ব্যাটারি সক্ষমতা বাড়ানো যেতে পারে। বর্তমানে বিভিন্ন ফোন প্রায় একচেটিয়াভাবে রিচার্জেবল লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির মাধ্যমে বানানো হয়। আর এসব ব্যাটারি কাজের বলে প্রমাণিত, তবে এগুলোর কিছু সীমাবদ্ধতাও রয়েছে। খোয়াল রাখুন ফোন যেন ঘণ্টার পর ঘণ্টা চার্জে না থাকে এবং ফোন শতভাগ চার্জ হয়ে গেলে তা আনপ্লাগ করুন। এছাড়াও দেখে নিন ফোন চার্জ দেওয়ার সময় কোন কোন বিষয় খেয়াল রাখবেন-
গরম জায়গায় ফোন চার্জ না দেওয়া: গরম জায়গায় ফোন চার্জে দেবেন না। এ বিষয়টি যতটা না ব্যাটারি স্বাস্থ্যের জন্য জরুরি তার চেয়েও ফোনের সুরক্ষার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ গরম জায়গায় চার্জ দেওয়ার ফলে ফোন গরম হয়ে যেতে পারে। আর এ বিষয়টি সম্ভবত ব্যবহারকারীরা মাঝেমধ্যেই খেয়াল করেছেন। এমনকি রাতে ঘুমানোর সময় বিছানার আশপাশে, বালিশ ও চাদরের নিচে ফোন চার্জে দেবেন না। কারণ, বিছানার চাদর ও বালিশের নিচে থাকলে ফোন আরও গরম হয়ে উঠতে পারে। এছাড়া অতিরিক্ত গরম বা উত্তাপের কারণে আগুন লেগে যাওয়ার ঝুঁকি তৈরি হতে পারে।
সস্তার রিপ্লেসমেন্ট তার ও প্লাগের ব্যবহার: কারো কারো ক্ষেত্রে ফোন কেনার এক দুই বছরের মধ্যে ফোনের সঙ্গে দেওয়া আসল চার্জার হারিয়ে ফেলার বিষয়টি সাধারণ হতে পারে। এরপরই আসল চার্জারের রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে বিভিন্ন সস্তার তার বা প্লাগের ব্যবহার শুরু হয়। এ বিষয়ে সতর্ক থাকুন। কারণ, এসব তার ও প্লাগের উৎপাদন খরচ কমানোর ফলে এতে মানসম্মত উপাদানের ব্যবহার হয় না। ফলে ফোন চার্জ হতে অনেক সময় নেয় ও গরম হয়ে যায়। তাই ফোনের জন্য মানসম্মত চার্জার ব্যবহার করতে পারেন। এতে ব্যয় কিছুটা বেশি হলেও তা ফোনের ব্যাটারির জন্য ভাল হবে।
ব্যাটারি-সেভিং অ্যাপ কেনা: ব্যাটারির আয়ু বাড়াতে কার্যকর কোনও অ্যাপ আছে কি না, তা দেখতে পারেন। তবে এটি কাজের না কি ঝুঁকিপূর্ণ তা আগে পরখ করে নিন। অনলাইনে এসব অ্যাপের রিভিউ দেখে নিতে পারেন। আইফোনের বেলায়, বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সেটিংয়ে এ ধরনের অ্যাপের প্রবেশাধিকার না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। আর এমন অ্যাপগুলো চালানোর ক্ষেত্রে নির্মাতারা ব্যবহারকারীর কাছে অর্থও চাইতে পারে। অ্যান্ড্রয়েডের বেলায় ফোনের অভ্যন্তরীণ সেটিংয়ে এ ধরনের অ্যাপগুলোর প্রবেশের সুযোগ বেশি থাকতে পারে। তবে, ব্যবহারকারীর কাছে বিশ্বাসযোগ্য নয়, এমন বিভিন্ন অ্যাপকে এ ধরনের সক্ষমতা না দেওয়াই ভালো।
একই সময়ে চার্জিং ও স্ট্রিমিং: ফোন অতিরিক্ত গরম হয়ে যাওয়া নিয়ে অনেক কথা বলা হয়ে থাকে, যা সঙ্গত কারণেই চার্জিংয়ের সময় অন্যতম প্রধান ঝুঁকির বিষয়। চার্জিংয়ের সময় ফোনের ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। বিশেষ করে ভিডিও স্ট্রিমিং বা গ্রাফিকাল ভিডিও গেইম খেলা থেকে দূরে থাকুন। কারণ চার্জিংয়ের সময় ফোন ব্যবহার করলে ব্যাটারির উপর চাপ পড়তে পারে, যা ব্যাটারির দীর্ঘমেয়াদী আয়ুর জন্য ভাল কিছু নয়। এমনকি এটি ফোনেরও ক্ষতি করতে পারে। তাই চার্জিংয়ের সময় ফোনটিকে একা ছেড়ে দেওয়ায় বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

আমানতের অর্থ লুটে খাচ্ছে ব্যাংক : পিআরআই

ফোন চার্জিংয়ের সময় এমন ভুল করছেন না তো?

আপডেট সময় : ১০:২৫:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১০ জুলাই ২০২৪

প্রযুক্তি ডেস্ক : ফোন চার্জিংয়ের বিষয়টি সবার দৈনন্দিন রুটিনে সহজ হলেও একটি দরকারি কাজ। একইসঙ্গে ফোনের ব্যাটারির দীর্ঘমেয়াদি সক্ষমতা পেতে ব্যবহারকারীরা চিন্তায় থাকেন। চার্জিংয়ের কিছু অভ্যাস বদলে ফেলার মাধ্যমে ফোনের ব্যাটারি সক্ষমতা বাড়ানো যেতে পারে। বর্তমানে বিভিন্ন ফোন প্রায় একচেটিয়াভাবে রিচার্জেবল লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির মাধ্যমে বানানো হয়। আর এসব ব্যাটারি কাজের বলে প্রমাণিত, তবে এগুলোর কিছু সীমাবদ্ধতাও রয়েছে। খোয়াল রাখুন ফোন যেন ঘণ্টার পর ঘণ্টা চার্জে না থাকে এবং ফোন শতভাগ চার্জ হয়ে গেলে তা আনপ্লাগ করুন। এছাড়াও দেখে নিন ফোন চার্জ দেওয়ার সময় কোন কোন বিষয় খেয়াল রাখবেন-
গরম জায়গায় ফোন চার্জ না দেওয়া: গরম জায়গায় ফোন চার্জে দেবেন না। এ বিষয়টি যতটা না ব্যাটারি স্বাস্থ্যের জন্য জরুরি তার চেয়েও ফোনের সুরক্ষার জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ গরম জায়গায় চার্জ দেওয়ার ফলে ফোন গরম হয়ে যেতে পারে। আর এ বিষয়টি সম্ভবত ব্যবহারকারীরা মাঝেমধ্যেই খেয়াল করেছেন। এমনকি রাতে ঘুমানোর সময় বিছানার আশপাশে, বালিশ ও চাদরের নিচে ফোন চার্জে দেবেন না। কারণ, বিছানার চাদর ও বালিশের নিচে থাকলে ফোন আরও গরম হয়ে উঠতে পারে। এছাড়া অতিরিক্ত গরম বা উত্তাপের কারণে আগুন লেগে যাওয়ার ঝুঁকি তৈরি হতে পারে।
সস্তার রিপ্লেসমেন্ট তার ও প্লাগের ব্যবহার: কারো কারো ক্ষেত্রে ফোন কেনার এক দুই বছরের মধ্যে ফোনের সঙ্গে দেওয়া আসল চার্জার হারিয়ে ফেলার বিষয়টি সাধারণ হতে পারে। এরপরই আসল চার্জারের রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে বিভিন্ন সস্তার তার বা প্লাগের ব্যবহার শুরু হয়। এ বিষয়ে সতর্ক থাকুন। কারণ, এসব তার ও প্লাগের উৎপাদন খরচ কমানোর ফলে এতে মানসম্মত উপাদানের ব্যবহার হয় না। ফলে ফোন চার্জ হতে অনেক সময় নেয় ও গরম হয়ে যায়। তাই ফোনের জন্য মানসম্মত চার্জার ব্যবহার করতে পারেন। এতে ব্যয় কিছুটা বেশি হলেও তা ফোনের ব্যাটারির জন্য ভাল হবে।
ব্যাটারি-সেভিং অ্যাপ কেনা: ব্যাটারির আয়ু বাড়াতে কার্যকর কোনও অ্যাপ আছে কি না, তা দেখতে পারেন। তবে এটি কাজের না কি ঝুঁকিপূর্ণ তা আগে পরখ করে নিন। অনলাইনে এসব অ্যাপের রিভিউ দেখে নিতে পারেন। আইফোনের বেলায়, বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সেটিংয়ে এ ধরনের অ্যাপের প্রবেশাধিকার না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। আর এমন অ্যাপগুলো চালানোর ক্ষেত্রে নির্মাতারা ব্যবহারকারীর কাছে অর্থও চাইতে পারে। অ্যান্ড্রয়েডের বেলায় ফোনের অভ্যন্তরীণ সেটিংয়ে এ ধরনের অ্যাপগুলোর প্রবেশের সুযোগ বেশি থাকতে পারে। তবে, ব্যবহারকারীর কাছে বিশ্বাসযোগ্য নয়, এমন বিভিন্ন অ্যাপকে এ ধরনের সক্ষমতা না দেওয়াই ভালো।
একই সময়ে চার্জিং ও স্ট্রিমিং: ফোন অতিরিক্ত গরম হয়ে যাওয়া নিয়ে অনেক কথা বলা হয়ে থাকে, যা সঙ্গত কারণেই চার্জিংয়ের সময় অন্যতম প্রধান ঝুঁকির বিষয়। চার্জিংয়ের সময় ফোনের ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। বিশেষ করে ভিডিও স্ট্রিমিং বা গ্রাফিকাল ভিডিও গেইম খেলা থেকে দূরে থাকুন। কারণ চার্জিংয়ের সময় ফোন ব্যবহার করলে ব্যাটারির উপর চাপ পড়তে পারে, যা ব্যাটারির দীর্ঘমেয়াদী আয়ুর জন্য ভাল কিছু নয়। এমনকি এটি ফোনেরও ক্ষতি করতে পারে। তাই চার্জিংয়ের সময় ফোনটিকে একা ছেড়ে দেওয়ায় বুদ্ধিমানের কাজ হবে।