ঢাকা ০৮:১১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ জুন ২০২৩, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পাঠ্যপুস্তকে যা নেই তা নিয়েও মিথ্যাচার করা হচ্ছে: দীপু মনি

  • আপডেট সময় : ০২:৪৮:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩
  • ৯ বার পড়া হয়েছে

রাজশাহী সংবাদদাতা : পাঠ্যপুস্তকে নেই এমন কিছু নিয়েও অনেকে মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন মন্তব্য করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বইয়ে বলা হয়েছে বানর থেকে মানুষ হয়নি। কিন্তু এটাকে উল্টো বুঝে ধর্মীয় বক্তারা মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন। সমকামীতা, পর্দা প্রথা বিরোধী, ইসলাম বিরোধী কোনো কিছু বইতে দেয়া হয়নি। তিনি বলেন, নতুন পাঠ্যক্রম যে দক্ষ ও যোগ্য মানবসম্পদ গড়ে তুলছে সেটা এই অপপ্রচারে চাপা পড়ে যাচ্ছে। ইসলামবিরোধী কোনো কিছু আওয়ামী লীগ করে না, করবেও না।
গতকাল সোমবার দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। অপচয় বন্ধে করতে গুচ্ছ পদ্ধতি চালু করা হয়েছে জানিয়ে দীপু মনি বলেন, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হয়রানি ও অপচয় বন্ধ করতে আমরা গুচ্ছ পদ্ধতি চালু করেছি। শুধু গুচ্ছ পদ্ধতি নয় শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা চিন্তা করে বিভিন্ন পদ্ধতি নিয়ে আমরা কাজ করছি। এখন ইংলিশ মিডিয়ামে শুধু উচ্চবিত্তরা না নি¤œবিত্তরাও পড়াশোনা করছেন।
মন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন একমুখী শিক্ষা। কিন্তু তা হয়ে গেছে বহুমুখী শিক্ষা। আমরা বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা ব্যবস্থার আলোকে শিক্ষা ব্যবস্থাটাকে সাজানোর চেষ্টা করছি। স্বাধীনতার জন্য, গণতন্ত্রের জন্য জীবন দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। তাই ভবিষ্যতে আরও ভালো পর্যায়ে যাওয়ার জন্য কাজ করে যেতে হবে। ‘প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আধুনিক শিক্ষার জন্য প্রয়োজন আধুনিক মাস্টারপ্ল্যান। একজন নাগরিককে সবদিক দিয়ে স্মার্ট হয়ে গড়ে উঠতে হবে। স্মার্ট নাগরিকের জন্য প্রয়োজন স্মার্ট শিক্ষার। আর স্মার্ট শিক্ষার ফলেই দেশ হয়ে উঠবে উন্নত। আর স্মার্ট শিক্ষার ক্ষেত্রে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে।’ তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে গবেষণার জায়গা। ফলে গবেষণা নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থাকে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা হয় মেধাবী। তাদেরকে প্রশিক্ষণের আওতায় আনলে তারা আরও গুণগত শিক্ষা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিলিয়ে দিতে পারবে। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যায়েও প্রশিক্ষণের ব্যবস্তা করতে হবে। আজকের শিক্ষার্থী আগামী দিনের শিক্ষক এটা আমাদের মাথায় রাখতে হবে।
শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ২০২২ সালে করোনার প্রভাব শেষ হয়নি, কাগজের সংকট, বিদ্যুৎ সংকটসহ বিভিন্ন সংকট মোকাবিলা করে নতুন বছরে আমরা শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই পৌঁছে দিতে পেরেছি। বই ছাপানো নিয়ে অনেকেই কটূ কথা বলছেন। আমরা ইসলামসহ পর্দা প্রথাকে হেয় করছি। বৌদ্ধ, খৃস্টান, হিন্দুত্ববাধ, সমকামিতা, পৌত্তলিকতাসহ বিভিন্ন মন্দির, গীর্জা বইয়ে স্থান দিয়েছি। তবে এগুলো একটাও সত্য না।
‘ধর্মীয় বক্তাদের মুখে অনেক কথাই শুনতে পাই। অযৌক্তিক কথা দিয়ে দেশ ও জাতিকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। সত্যতা যাচাই করে কথা বলবেন। যে কেউ মিথ্যাচার করলে তাতে কান দেয়া যাবে না, ছাড় দেয়া যাবে না। সত্যের পথটা কঠিন। স্বাধীন বাংলাদেশে মিথ্যাচারের কোন স্থান থাকতে পারে না’—যোগ করেন তিনি। জ্ঞানভিত্তিক শিক্ষার পাশাপাশি দক্ষতা অর্জনের ওপরও গুরুত্ব দেন শিক্ষামন্ত্রী। বলেন, শুধু জ্ঞানভিত্তিক শিক্ষায় চলবে না। দক্ষতা অর্জন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সুলতান-উল-ইসলাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. এ এম হুমায়ুন কবির, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. অবাইদুর রহমান প্রামাণিক। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও জনাব মো. মুরশেদুল কবীরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, স্বর্ণপদক প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীরা ও তাদের অভিভাবকরা।

ট্যাগস :

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

পাঠ্যপুস্তকে যা নেই তা নিয়েও মিথ্যাচার করা হচ্ছে: দীপু মনি

আপডেট সময় : ০২:৪৮:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩

রাজশাহী সংবাদদাতা : পাঠ্যপুস্তকে নেই এমন কিছু নিয়েও অনেকে মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন মন্তব্য করে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বইয়ে বলা হয়েছে বানর থেকে মানুষ হয়নি। কিন্তু এটাকে উল্টো বুঝে ধর্মীয় বক্তারা মিথ্যাচার করে যাচ্ছেন। সমকামীতা, পর্দা প্রথা বিরোধী, ইসলাম বিরোধী কোনো কিছু বইতে দেয়া হয়নি। তিনি বলেন, নতুন পাঠ্যক্রম যে দক্ষ ও যোগ্য মানবসম্পদ গড়ে তুলছে সেটা এই অপপ্রচারে চাপা পড়ে যাচ্ছে। ইসলামবিরোধী কোনো কিছু আওয়ামী লীগ করে না, করবেও না।
গতকাল সোমবার দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। অপচয় বন্ধে করতে গুচ্ছ পদ্ধতি চালু করা হয়েছে জানিয়ে দীপু মনি বলেন, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের হয়রানি ও অপচয় বন্ধ করতে আমরা গুচ্ছ পদ্ধতি চালু করেছি। শুধু গুচ্ছ পদ্ধতি নয় শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা চিন্তা করে বিভিন্ন পদ্ধতি নিয়ে আমরা কাজ করছি। এখন ইংলিশ মিডিয়ামে শুধু উচ্চবিত্তরা না নি¤œবিত্তরাও পড়াশোনা করছেন।
মন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন একমুখী শিক্ষা। কিন্তু তা হয়ে গেছে বহুমুখী শিক্ষা। আমরা বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা ব্যবস্থার আলোকে শিক্ষা ব্যবস্থাটাকে সাজানোর চেষ্টা করছি। স্বাধীনতার জন্য, গণতন্ত্রের জন্য জীবন দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। তাই ভবিষ্যতে আরও ভালো পর্যায়ে যাওয়ার জন্য কাজ করে যেতে হবে। ‘প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আধুনিক শিক্ষার জন্য প্রয়োজন আধুনিক মাস্টারপ্ল্যান। একজন নাগরিককে সবদিক দিয়ে স্মার্ট হয়ে গড়ে উঠতে হবে। স্মার্ট নাগরিকের জন্য প্রয়োজন স্মার্ট শিক্ষার। আর স্মার্ট শিক্ষার ফলেই দেশ হয়ে উঠবে উন্নত। আর স্মার্ট শিক্ষার ক্ষেত্রে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অগ্রণী ভুমিকা পালন করছে।’ তিনি আরও বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে গবেষণার জায়গা। ফলে গবেষণা নিয়ে কাজ করতে হবে। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা থাকে না। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা হয় মেধাবী। তাদেরকে প্রশিক্ষণের আওতায় আনলে তারা আরও গুণগত শিক্ষা শিক্ষার্থীদের মাঝে বিলিয়ে দিতে পারবে। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যায়েও প্রশিক্ষণের ব্যবস্তা করতে হবে। আজকের শিক্ষার্থী আগামী দিনের শিক্ষক এটা আমাদের মাথায় রাখতে হবে।
শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ২০২২ সালে করোনার প্রভাব শেষ হয়নি, কাগজের সংকট, বিদ্যুৎ সংকটসহ বিভিন্ন সংকট মোকাবিলা করে নতুন বছরে আমরা শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই পৌঁছে দিতে পেরেছি। বই ছাপানো নিয়ে অনেকেই কটূ কথা বলছেন। আমরা ইসলামসহ পর্দা প্রথাকে হেয় করছি। বৌদ্ধ, খৃস্টান, হিন্দুত্ববাধ, সমকামিতা, পৌত্তলিকতাসহ বিভিন্ন মন্দির, গীর্জা বইয়ে স্থান দিয়েছি। তবে এগুলো একটাও সত্য না।
‘ধর্মীয় বক্তাদের মুখে অনেক কথাই শুনতে পাই। অযৌক্তিক কথা দিয়ে দেশ ও জাতিকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। সত্যতা যাচাই করে কথা বলবেন। যে কেউ মিথ্যাচার করলে তাতে কান দেয়া যাবে না, ছাড় দেয়া যাবে না। সত্যের পথটা কঠিন। স্বাধীন বাংলাদেশে মিথ্যাচারের কোন স্থান থাকতে পারে না’—যোগ করেন তিনি। জ্ঞানভিত্তিক শিক্ষার পাশাপাশি দক্ষতা অর্জনের ওপরও গুরুত্ব দেন শিক্ষামন্ত্রী। বলেন, শুধু জ্ঞানভিত্তিক শিক্ষায় চলবে না। দক্ষতা অর্জন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সুলতান-উল-ইসলাম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. এ এম হুমায়ুন কবির, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. অবাইদুর রহমান প্রামাণিক। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও জনাব মো. মুরশেদুল কবীরসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, স্বর্ণপদক প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীরা ও তাদের অভিভাবকরা।