The Daily Ajker Prottasha

ঢাকা লিট ফেস্টের দশম আসর ৫-৮ জানুয়ারি

0 0
Read Time:8 Minute, 22 Second

প্রত্যাশা ডেস্ক : করোনা মহামারির কারণে টানা তিন বছর বন্ধ থাকার পর আবারও ঢাকায় বসছে শিল্প-সাহিত্যের অন্যতম জনপ্রিয় আসর ‘ঢাকা লিট ফেস্ট (ডিএলএফ)। আগামী ৫-৮ জানুয়ারি বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠেয় এবারের আসরে সম্ভাব্য ২০০ জন বক্তার মধ্যে প্রথম ২৫ জনের নামের তালিকা প্রকাশ করেছেন আয়োজকরা। এরমধ্যে রয়েছেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী লেখক অরহান পামুক, আব্দুলরাযাক গুরনাহসহ অন্যরা। গতকাল শুক্রবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন ঢাকা লিট ফেস্টের তিন পরিচালক সাদাফ সায্, আহসান আকবার ও কাজী আনিস আহমেদ।
শুরু থেকেই শীতকালীন জনপ্রিয় একটি বার্ষিক আয়োজন ছিল ঢাকা লিট ফেস্ট। সবার জন্য উন্মুক্ত থাকায় প্রতি বছরই লিট ফেস্টে ব্যাপক জনসমাগম হতো। তবে করোনার সংক্রমণের কারণে গেলো তিন বছর এই আয়োজন বন্ধ ছিল। সর্বশেষ ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত নবম লিট ফেস্টে প্রায় ৩০ হাজার মানুষ অংশ নিয়েছিলেন।
এবারের সম্ভাব্য ২০০ বক্তার মধ্যে অরহান পামুক ও আব্দুলরাযাক গুরনাহ ছাড়াও প্রথম ২৫ জনের তালিকায় রয়েছেন, নুরুদ্দিন ফারাহ, অমিতাভ ঘোষ, হানিফ কুরেশি, রড্রিগো রে রোজা, পঙ্কজ মিশ্র, টিল্ডা সুইন্টন, জন লি অ্যান্ডারসন, অঞ্জলি রউফ, সারাহ চার্চওয়েল, গীতাঞ্জলি শ্রী, ডেইজি রকওয়েল, এসথার ফ্রয়েড, ম্যাথিউ এইকিন্স, আলেকজেন্দ্রা প্রিঙ্গেল, আন্দ্রে কুরকভ, আসমা সাইদ খান, ডেইম স্যারাহ গিলবার্ট, আনিসুল হক, মাশরুর আরেফিন, জয়া আহসান, কামাল নাসের চৌধুরী, জাফর ইকবাল ও মারিনা তাবাসসুম।
নোবেল পুরস্কার বিজয়ী দুই জন লেখক ছাড়াও আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন পুরস্কার বিজয়ী বক্তারা দশম সংস্করণের এই আয়োজনে যোগ দেবেন। যাদের মধ্যে পুলিৎজার, ইন্টারন্যাশনাল বুকার, নিউস্ট্যাড ইন্টারন্যাশনাল, পেন বা পিন্টার, প্রিক্স মেডিসিস, অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড, উইন্ডহাম ক্যাম্পবেল পুরস্কার, অ্যালার্ট মেডেল, ওয়াটারস্টোন চিল্ড্রেনস বুক প্রাইজ, আঁগা খান অ্যাওয়ার্ড ও অন্য পুরস্কার বিজয়ীরাও থাকছেন।

আয়োজকরা বলছেন, চার দিনের এই আয়োজনের আলোচনায় থাকবে বিষয় বৈচিত্র্য, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, শিল্প প্রদর্শনী, সংগীত এবং অন্যান্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
লেখক, প্রযোজক ও সহ-পরিচালক সাদাফ সায্ বলেছেন, ‘ঢাকা লিট ফেস্টের দশম সংস্করণে থাকছেন চমকপ্রদ সব বক্তা। ঢাকায় প্রথমবারের মতো একসঙ্গে, একই সময়ে দুই জন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী লেখক উপস্থিত থাকছেন। বই পড়া ও সাহিত্যের প্রতি ভালোবাসার চার দিনের এই মনোমুগ্ধকর আয়োজনে বিস্তৃত সব বিষয় আমরা আলোচনা করবো বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে। সেই সঙ্গে থাকবে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, লাইভ মিউজিক এবং শিল্পকলার অন্যান্য অনুষ্ঠানও।’
লেখক ও ডিএলএফ-এর সহ-পরিচালক আহসান আকবার বলেছেন, ‘বিগত দুই বছর ধরে আমরা সারা দুনিয়ার সেরা বক্তাদের একত্রিত করতে কঠোর পরিশ্রম করছিলাম। আমরা দেশ-বিদেশের বক্তাদের বৈচিত্র্যময় সংমিশ্রণে আকর্ষণীয় আলোচনার একটি অবিস্মরণীয় উৎসব আয়োজন করতে যাচ্ছি। ডিএলএফ-এর এই দশম সংস্করণ খুবই উদ্দীপনাময় হতে যাচ্ছে।’
লেখক ও ডিএলএফ-এর আরেক পরিচালক কাজী আনিস আহমেদ বলেছেন, ‘আমরা আমাদের মৌলিক আদর্শের জায়গায় অটুট আছি ও থাকবো। আমরা পরিচিতি ও অভিব্যক্তির বহুত্বতায় বিশ্বাসী এবং মত প্রকাশের অধিকারে অঙ্গীকারবদ্ধ।’
বিশ্ববাসীর কাছে বাংলাদেশের সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং ঢাকাকে তুলে ধরার লক্ষ্যে সাদাফ সায্, আহসান আকবার ও কাজী আনিস আহমেদের পরিচালনায় ২০১১ সালে যাত্রা শুরু হয় ঢাকা লিট ফেস্টের। সংস্কৃতির অন্যান্য শাখাও সাহিত্যপ্রধান এই উৎসবের অবিচ্ছিন্ন অংশ। কল্পকাহিনি বা গল্প থেকে শুরু করে প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও ইতিহাস, সমাজ ও রাজনীতি, কবিতা ও অনুবাদ, বিজ্ঞান, ধর্ম ও দর্শন- এর সবই এই উৎসবে আলোচনার বিষয়বস্তু।
উল্লেখ্য, দীর্ঘ ৯ বছরের এই আয়োজনে ৫০টি দেশ থেকে চার শতাধিক ব্যক্তিত্ব অংশ নিয়েছেন। ঢাকা লিট ফেস্ট বাংলাদেশের একমাত্র আয়োজন; যেখানে নোবেল বিজয়ী কথাসাহিত্যিক ভি এস নাইপল, জীববিজ্ঞানে নোবেল বিজয়ী হ্যারল্ড ভারমাস, অস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী টিল্ডা সুইন্টন, পুলিৎজার বিজয়ী লেখক বিজয় শেষাদ্রিসহ অনেকেই অংশ নেন। অংশ নিয়েছিলেন অ্যাডোনিস, বিক্রম শেঠ, তারিক আলী, আহদাফ সোয়েফ, উইলিয়াম ডালরিম্পাল, নয়নতারা সেগেল, টিল্ডা সুইন্টন, শশী থারুর, শোভা দে, নন্দিতা দাস, বিজয় শেষাদ্রি ও মোহাম্মাদ হানিফের মতো অসংখ্য রথী-মহারথী লেখক, সাহিত্যিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব।

এই আয়োজনে আরও অংশ নিয়েছেন বাংলা সাহিত্যের অগ্রজ সৈয়দ শামসুল হক, হাসান আজিজুল হক, সেলিনা হোসেন, দেবেশ রায়, নির্মলেন্দু গুণ, জয় গোস্বামী, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়সহ আরও অনেকে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের সেরা লেখা নিয়ে অনুবাদে প্রকাশিত অনন্য ‘লাইব্রেরি অব বাংলাদেশ’সহ নতুন প্রকাশনা ও পত্রিকার প্রকাশ ডিএলএফ সবসময় অনুপ্রাণিত করেছে। ডিএলএফ শুধু বিশ্বের সঙ্গে আমাদের দর্শক বা শ্রোতাদের দূরত্বই কমায়নি, একইসঙ্গে সমৃদ্ধ করেছে এই জগৎকে আলোচনা, বিতর্ক ও অভিব্যক্তি প্রকাশের মাধ্যমে।
উৎসবের কিছু দিন আগে আয়োজকরা এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। পূর্ণাঙ্গ অনুষ্ঠানসূচি উৎসবের দুই সপ্তাহ আগে প্রকাশ করা হবে জানিয়ে এ সংক্রান্ত যেকোনও তথ্যের জন্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইট (িি.িফযধশধষরঃভবংঃ.পড়স) ভিজিট করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *