ঢাকা ০৫:৩১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চলতি বছরে বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আইএমএফ

  • আপডেট সময় : ০২:২৯:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩
  • ৩৯ বার পড়া হয়েছে

বিদেশের খবর ডেস্ক : চলতি ২০২৩ সালের জন্য বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। গতকাল মঙ্গলবার আইএমএফ-এর নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরে গড় বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হবে ২ দশমিক ৯ শতাংশ। এর আগে গত অক্টোবরে দেওয়া পূর্বাভাসে আইএমএফ ২০২৩ সালের জন্য প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছিল ২ দশমিক ৭ শতাংশ। আইএমএফ এর নতুন পূর্বাভাসে ২ পার্সেন্টিজ পয়েন্ট বাড়ালেও তা ২০২২ সালের চেয়ে কম। ২০২২ সালে বৈশ্বিক গড় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৩ দশমিক ৪ শতাংশ। মঙ্গলবার নতুন প্রতিবেদনে ২০২৪ সালের জন্যও প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আইএমএফ। ২০২৪ সালে বৈশ্বিক গড় প্রবৃদ্ধি ৩ দশমিক ১ শতাংশ ধরেছে সংস্থাটি। আইএমএফ-এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ব্লগপোস্টে গবেষণা বিভাগের পরিচালক পিয়েরে-অলিভিয়ের গৌরিঞ্চাস বলেন, ঐতিহাসিক মানদ-ে এ বছর প্রবৃদ্ধি দুর্বল থাকবে। মুদ্রাস্ফীতির বিরুদ্ধে লড়াই এবং ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধের উপর প্রবৃদ্ধি নির্ভর করছে। আইএমএফ-এর নতুন পূর্বাভাসে বিশ্বের প্রধান অর্থনীতি যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১ দশমিক ৪ শতাংশ, যা ২০২২ সালে ছিল ২ শতাংশ। এর আগে গত অক্টোবরে আইএমএফ-এর পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, ২০২৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি হবে ১ শতাংশ। নতুন পূর্বাভাসে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস ৪ পার্সেন্টিজ পয়েন্ট বাড়িয়েছে সংস্থাটি। আইএমএফ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রে পূর্বের আশঙ্কার তুলনায় ভোক্তা ব্যালেন্স শিট শক্তিশালী থাকবে। এছাড়া এই সময় শ্রমবাজারও কিছুটা শক্তিশালী হবে। কঠোর কোভিড ধরাবাধা নিয়মের কারণে চীনের অর্থনীতি বেশ চাপে পড়েছিল গত বছর। তবে গত মাসে হঠাৎ কোডিড বাধ্যবাধকতা উঠিয়ে নেয় সেদেশের সরকার। এর ফলে অর্থনীতিতে ধসের যে আশঙ্কা করা হয়েছিল তার চেয়ে চীন কিছুটা ভালো অবস্থানে থাকবে চলতি বছরে। ২০২২ সালে চীনে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছিল মাত্র ৩ শতাংশ, যা দেশটির সাম্প্রতিক বছরগুলোর গড় প্রবৃদ্ধি থেকে বেশ কম। তবে ২০২৩ সালে চীনের প্রবৃদ্ধি ৫ দশমিক ২ শতাংশ হবে বলে আইএমএফ-এর নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। শীর্ষ অর্থনীতিগুলোর মধ্যে কেবল যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি সঙ্কুচিত হবে। আইএমএফ ২০২৩ সালের জন্য যুক্তরাজ্যের প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছে দশমিক ৬ শতাংশ। ক্রমাগত সুদের হার বৃদ্ধি এবং লিজ ট্রাসের আমলে ভুল আর্থিক নীতির কারণে যুক্তরাজ্যে এই সমস্যায় পড়বে। তবে আইএমএফ মনে করছে, যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি বর্তমানে সঠিক পথেই আছে। চলতি বছরে ভারতের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ২০২২ সালের তুলনায় কম হবে বলে জানিয়েছে আইএমএফ। নতুন পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালে ভারতের প্রবৃদ্ধি হবে ৬ দশমিক ১ শতাংশ, যা ২০২২ সালে ছিল ৬ দশমিক ৮ শতাংশ। এছাড়া আসিয়ান অঞ্চলের ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন্স, সিঙ্গাপুর এবং থাইল্যান্ডের গড় প্রবৃদ্ধি গত বছরের তুলনায় হ্রাস পাবে। এই পাঁচ দেশের গড় প্রবৃদ্ধি ২০২২ সালে ছিল ৪ দশমিক ৩ শতাংশ। ২০২৩ সালে পাঁচ দেশের প্রবৃদ্ধি ৪ দশমিক ১ শতাংশ হবে বলে আইএমএফ-এর সর্বশেষ পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

ট্যাগস :

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

চলতি বছরে বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আইএমএফ

আপডেট সময় : ০২:২৯:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩

বিদেশের খবর ডেস্ক : চলতি ২০২৩ সালের জন্য বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। গতকাল মঙ্গলবার আইএমএফ-এর নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি বছরে গড় বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হবে ২ দশমিক ৯ শতাংশ। এর আগে গত অক্টোবরে দেওয়া পূর্বাভাসে আইএমএফ ২০২৩ সালের জন্য প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছিল ২ দশমিক ৭ শতাংশ। আইএমএফ এর নতুন পূর্বাভাসে ২ পার্সেন্টিজ পয়েন্ট বাড়ালেও তা ২০২২ সালের চেয়ে কম। ২০২২ সালে বৈশ্বিক গড় অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৩ দশমিক ৪ শতাংশ। মঙ্গলবার নতুন প্রতিবেদনে ২০২৪ সালের জন্যও প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস বাড়িয়েছে আইএমএফ। ২০২৪ সালে বৈশ্বিক গড় প্রবৃদ্ধি ৩ দশমিক ১ শতাংশ ধরেছে সংস্থাটি। আইএমএফ-এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ব্লগপোস্টে গবেষণা বিভাগের পরিচালক পিয়েরে-অলিভিয়ের গৌরিঞ্চাস বলেন, ঐতিহাসিক মানদ-ে এ বছর প্রবৃদ্ধি দুর্বল থাকবে। মুদ্রাস্ফীতির বিরুদ্ধে লড়াই এবং ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধের উপর প্রবৃদ্ধি নির্ভর করছে। আইএমএফ-এর নতুন পূর্বাভাসে বিশ্বের প্রধান অর্থনীতি যুক্তরাষ্ট্রের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১ দশমিক ৪ শতাংশ, যা ২০২২ সালে ছিল ২ শতাংশ। এর আগে গত অক্টোবরে আইএমএফ-এর পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, ২০২৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধি হবে ১ শতাংশ। নতুন পূর্বাভাসে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস ৪ পার্সেন্টিজ পয়েন্ট বাড়িয়েছে সংস্থাটি। আইএমএফ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রে পূর্বের আশঙ্কার তুলনায় ভোক্তা ব্যালেন্স শিট শক্তিশালী থাকবে। এছাড়া এই সময় শ্রমবাজারও কিছুটা শক্তিশালী হবে। কঠোর কোভিড ধরাবাধা নিয়মের কারণে চীনের অর্থনীতি বেশ চাপে পড়েছিল গত বছর। তবে গত মাসে হঠাৎ কোডিড বাধ্যবাধকতা উঠিয়ে নেয় সেদেশের সরকার। এর ফলে অর্থনীতিতে ধসের যে আশঙ্কা করা হয়েছিল তার চেয়ে চীন কিছুটা ভালো অবস্থানে থাকবে চলতি বছরে। ২০২২ সালে চীনে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছিল মাত্র ৩ শতাংশ, যা দেশটির সাম্প্রতিক বছরগুলোর গড় প্রবৃদ্ধি থেকে বেশ কম। তবে ২০২৩ সালে চীনের প্রবৃদ্ধি ৫ দশমিক ২ শতাংশ হবে বলে আইএমএফ-এর নতুন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। শীর্ষ অর্থনীতিগুলোর মধ্যে কেবল যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি সঙ্কুচিত হবে। আইএমএফ ২০২৩ সালের জন্য যুক্তরাজ্যের প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস দিয়েছে দশমিক ৬ শতাংশ। ক্রমাগত সুদের হার বৃদ্ধি এবং লিজ ট্রাসের আমলে ভুল আর্থিক নীতির কারণে যুক্তরাজ্যে এই সমস্যায় পড়বে। তবে আইএমএফ মনে করছে, যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি বর্তমানে সঠিক পথেই আছে। চলতি বছরে ভারতের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ২০২২ সালের তুলনায় কম হবে বলে জানিয়েছে আইএমএফ। নতুন পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ২০২৩ সালে ভারতের প্রবৃদ্ধি হবে ৬ দশমিক ১ শতাংশ, যা ২০২২ সালে ছিল ৬ দশমিক ৮ শতাংশ। এছাড়া আসিয়ান অঞ্চলের ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন্স, সিঙ্গাপুর এবং থাইল্যান্ডের গড় প্রবৃদ্ধি গত বছরের তুলনায় হ্রাস পাবে। এই পাঁচ দেশের গড় প্রবৃদ্ধি ২০২২ সালে ছিল ৪ দশমিক ৩ শতাংশ। ২০২৩ সালে পাঁচ দেশের প্রবৃদ্ধি ৪ দশমিক ১ শতাংশ হবে বলে আইএমএফ-এর সর্বশেষ পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।