The Daily Ajker Prottasha

কোরবানির ঈদে ট্রেনের আগাম টিকেট ১ জুলাই থেকে

0 0
Read Time:8 Minute, 21 Second

নিজস্ব প্রতিবেদক : কোরবানির ঈদ উপলক্ষে ঢাকা থেকে ট্রেনের আগাম টিকেট বিক্রি শুরু হবে ১ জুলাই থেকে। ১ জুলাই পাওয়া যাবে ৫ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকেট। ২ জুলাই পাওয়া যাবে ৬ জুলাইয়ের টিকেট, ৩ জুলাই পাওয়া যাবে ৭ জুলাইয়ের টিকেট, ৪ জুলাই পাওয়া যাবে ৮ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকেট এবং ৫ জুলাই দেওয়া হবে ৯ জুলাইয়ের টিকেট। ঈদ শেষে ফিরতি ট্রেনের ক্ষেত্রে ১১ জুলাইয়ের টিকেট পাওয়া যাবে ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকেট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকেট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকেট ১১ জুলাই পাওয়া যাবে।
গতকাল বুধবার ঢাকার রেলভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন ট্রেনের ঈদ টিকেট বিক্রির সময়সূচি জানান। গতবারের চেয়ে এবার ট্রেনের টিকেট বিক্রির ক্ষেত্রে অনেকটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। ঢাকায় ৬টি স্টেশনে এবং গাজীপুরের জয়দেবপুর রেলওয়ে স্টেশনে থেকে ঈদের ট্রেনের টিকেট পাওয়া যাবে। ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে সমগ্র উত্তরাঞ্চলগামী আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট, কমলাপুর শহরতলী প্লাটফরম থেকে রাজশাহী ও খুলনাগামী ট্রেনের টিকেট, ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশন থেকে চট্টগ্রাম ও নোয়াখালীগামী সব আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট, তেজগাঁও স্টেশনে পাওয়া যাবে ময়মনসিংহ, জামালপুর, দেওয়ানগঞ্জগামী ঈদ স্পেশাল ট্রেনের টিকেট। ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে পাওয়া যাবে নেত্রকোনাগামী মোহনগঞ্জ ও হাওর এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকেট, ফুলবাড়িয়া স্টেশন থেকে পাওয়া যাবে সিলেট ও কিশোরগঞ্জগামী ট্রেনের টিকেট। গাজীপুরের জয়দেবপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে পঞ্চগড়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম ঈদ স্পেশাল ট্রেনের টিকেট বিক্রি হবে।
৬ জোড়া বিশেষ ট্রেন : সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী জানান, এবার ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের ভ্রমণের সুবিধার্থে ছয় জোড়া বিশেষ ট্রেন চরবে। ঈদের তিন দিন আগ থেকে এবং ঈদের পরে পাঁচদিন ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ-ঢাকা রুটে দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল, চট্টগ্রাম-চাঁদপুর-চট্টগ্রাম রুটে চাঁদপুর স্পেশাল-১ এবং একই রুটে চাঁদপুর স্পেশাল-২ ট্রেন চলবে। ঈদের আগে তিন দিন এবং ঈদের পরদিন থেকে চার দিন জয়দেবপুর-পঞ্চগড়-জয়দেবপুর র্যুটে চলবে পঞ্চগড় ঈদ স্পেশাল ট্রেন। এছাড়াও ঈদের দিন ভৈরববাজার-কিশোরগঞ্জ-ভৈরববাজার রুটে শোলাকিয়া স্পেশাল-১ এবং ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ রুটে শোলাকিয়া স্পেশাল-২ ট্রেনগুলো চলবে।
রংপুর ও লালমনিরহাটগামী যাত্রীদের জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম ঈদ স্পেশাল ট্রেনে লালমনিরহাট স্টেশনের অনুকূলে আসন বরাদ্দ থাকবে। এই ট্রেনে লালমনিরহাটগামী যাত্রীদের জন্য পার্বতীপুর থেকে কানেক্টিং ট্রেনে রংপুর ও লালমনিরহাট ভ্রমণের ব্যবস্থা থাকবে। এবার ঢাকা থেকে বহির্গামী ট্রেনের প্রতিদিন মোট আসন সংখ্যা হবে ২৬ হাজার ৭১৩টি, যার অর্ধেক টিকিট কাউন্টার এবং অর্ধেক অনলাইনে বিক্রি হবে। সংবাদ সম্মেলনে জানান হয়, স্পেশাল ট্রেনের কোনো টিকেট অনলাইনে পাওয়া যাবে না। শুধু স্টেশনের কাউন্টার থেকে বিক্রি করা হবে। এছাড়াও ঈদুল আজহা উপলক্ষে পূর্বাঞ্চলে দেওয়ানগঞ্জ বাজার রেলওয়ে স্টেশন ও পশ্চিমাঞ্চলে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন থেকে ঢাকা পর্যন্ত কোরবানির পশু পরিবহনের জন্য ‘ক্যাটেল স্পেশাল’ ট্রেন পরিচালনা করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী। ঈদের দিন কোনো আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে না বলেও জানান তিনি। যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের সুবিধায় ঈদের তিন দিন আগে থেকে কনটেইনার ও জ্বালানি তেলবাহী ট্রেন ছাড়া সব মালবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়াও ঈদ যাত্রার শুরুর দিন থেকে ঈদের আগেরদিন পর্যন্ত ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশন থেকে ঢাকাগামী কোনো ট্রেনের টিকেট বিক্রি হবে না।। ৮ জুলাই থেকে ৯ জুলাই পর্যন্ত ঢাকাগামী একতা, দ্রুতযান, পঞ্চগড়, নীলসাগর, কুড়িগ্রাম, লালমনি ও রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেনে ঢাকা বিমানবন্দর স্টেশনে যাত্রা বিরতি থাকবে না। রেলমন্ত্রী বলেন, ‘টিকিট যার ভ্রমণ তার’- স্লোগান বাস্তবায়নে টিকিট কেনার ক্ষেত্রে যাত্রীদের জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম সনদের ফটোকপি দেখিয়ে কাউন্টার থেকে টিকিট কিনতে হবে। কাউন্টারে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একনাগাড়ে ঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রি চলবে। প্রতিটি কেন্দ্রে নারী ও প্রতিবন্ধীদের জন্য একটি করে কাউন্টার থাকবে। এছাড়াও রেল সেবা মোবাইল অ্যাপ ও ইন্টারনেটে ই-টিকেটিংয়ের মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে ঈদের অগ্রিম টিকেট বিক্রি শুরু হবে। একজন যাত্রী একসাথে সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবে। টিকেট কালোবাজারী প্রতিরোধের ব্যবস্থা প্রসঙ্গে রেলমন্ত্রী বলেন, “ঢাকা, ঢাকা বিমানবন্দর, জয়দেবপুর, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, সিলেট, রাজশাহী, খুলনাসহ সব বড় বড় স্টেশনে জিআরপি, আরএনবি, বিজিবি ও স্থানীয় পুলিশ এবং র‌্যাবের সহযোগিতায় টিকেট কালোবাজারী প্রতিরোধে সার্বক্ষণিক প্রহরার ব্যবস্থা থাকৰে। তাছাড়া জেলা প্রশাসকদের সাহায্যে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে।
“এছাড়া চলন্ত ট্রেনে, স্টেশনে বা রেললাইনে নাশকতামূলক কর্মকা- প্রতিরোধে আরএনবি, জিআরপি ও রেলওয়ে কর্মচারীদের কার্যক্রম আরও জোরদার করা হবে।” সংবাদ সম্মেলনে আরও জানান হয়, আগামী ৬ জুলাই থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত ভারতগামী মিতালী এক্সপ্রেস এবং ৭ জুলাই থেকে থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত মৈত্রী এক্সপ্রেস ও বন্ধন এক্সপ্রেস চলাচল করবে না।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

Leave a Reply

Your email address will not be published.