ঢাকা ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ইনস্টাগ্রামে ছদ্মবেশীর কবলে পড়লে করণীয়

  • আপডেট সময় : ১০:৫২:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩
  • ১৭৫ বার পড়া হয়েছে

প্রযুক্তি ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোয় ছদ্মবেশী অ্যাকাউন্টের সংখ্যা বাড়ছে। এসব অ্যাকাউন্ট থেকে কাছের মানুষ বা বন্ধুদের সরাসরি মেসেজ (ডিএম) দেয়া হয়। অপরাধীদের দ্বারা অন্যের অ্যাকাউন্টের ছদ্মবেশ ধারণ নতুন কিছু নয়, আর যে কারও সঙ্গেই এটি ঘটতে পারে। দেখা গেল যে, ইনস্টাগ্রাম থেকে বন্ধুর ডিএম (ডিরেক্ট মেসেজ) পেয়েছেন, অথচ অ্যাকাউন্টটি চিনতে পারছেন না। এর মানে, আপনার বন্ধু কোনো অপরাধীর মাধ্যমে ছদ্মবেশের শিকার হয়েছেন। ইনস্টাগ্রামে আপনার বন্ধু বা অন্য কেউ যদি ছদ্মবেশের শিকার হন, সেক্ষেত্রে আপনার করণীয় কী? ইনস্টাগ্রামের নিয়ম বলছে, ছদ্মবেশের শিকার হয়েছে-এমন ব্যক্তিই কেবল রিপোর্ট করতে পারবে। তবে কিছু পদক্ষেপের মাধ্যমে কাছের বন্ধু বা ব্যক্তি তাকে সহায়তা করতে পারবে। এক্ষেত্রে ছদ্মবেশের শিকার ব্যক্তির সঙ্গে আপনি ডিএম, ই-মেইল বা সেলফোনে যোগাযোগ করুন। যেন এ বিষয়ে তিনি ইনস্টাগ্রামে রিপোর্ট করেন। যদি ছদ্মবেশের শিকার হওয়া অ্যাকাউন্টটি আপনি প্রতিনিধিত্ব করছেন এমন কারও (যেমন, আপনার সন্তানের) হয়, তাহলে এই ফরমটি ব্যবহার করে ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট করতে পারবেন।
যদি অন্য কেউ ইনস্টাগ্রামে আপনার ছদ্মবেশ ধারণ করে থাকে, সেক্ষেত্রে অবশ্যই অ্যাপ থেকে অথবা িি.িরহংঃধমৎধস.পড়স/যধপশবফ ভিজিট করে রিপোর্ট করতে হবে।
ছদ্মবেশী এ আক্রমণ থেকে সুরক্ষিত থাকার জন্য কিছু পদক্ষেপ নিতে পারেন-
* টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন (টুএফএ) চালু করুন এবং ইউনিক পাসওয়ার্ড বা পাসফ্রেজ ব্যবহার করুন। সেক্ষেত্রে অপরাধীদের জন্য কেবল ‘ফরগট পাসওয়ার্ড’ ব্যবহার করে অ্যাকাউন্টের দখল নিতে চাওয়া তুলনামূলকভাবে কঠিন হবে।
* যে ই-মেইল ও ফোন নম্বর ইনস্টাগ্রামে ব্যবহৃত হয়েছে, সেগুলো হালনাগাদ বা আপনার নিয়ন্ত্রণে আছে কি না, তা নিশ্চিত করুন।
* বাস্তব জীবনের মতোই অপরিচিত কারও ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন। আপনার ঠিকানা বা ফোন নম্বরের মতো একান্ত ব্যক্তিগত বা সংবেদনশীল তথ্য ইনস্টাগ্রামে প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকুন।
* সবসময় সাবধানতা অবলম্বন করুন এবং ইনস্টাগ্রাম অ্যাপের সিকিউরিটি চেকআপের মাধ্যমে আপনার সিকিউরিটি সেটিংস ম্যানেজ করুন।
* আপনার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলের ওপরের ডান দিকের কোণায় থাকা থ্রি-ড্যাশ মেনু বাটনে ট্যাপ করুন, সেটিংস অ্যান্ড প্রাইভেসি অপশন নির্বাচন করুন, অ্যাকাউন্টস সেন্টার ট্যাপ করুন, অ্যাকাউন্টস সেটিংসের অধীনে পাসওয়ার্ড অ্যান্ড সিকিউরিটি ট্যাপ করুন, সিকিউরিটি চেকসের অধীনে সিকিউরিটি চেকআপ ট্যাপ করুন, ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট সিলেক্ট করুন এবং তারপর ইনস্টাগ্রামের পরবর্তী নির্দেশনাবলি অনুসরণ করুন।

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

ইনস্টাগ্রামে ছদ্মবেশীর কবলে পড়লে করণীয়

আপডেট সময় : ১০:৫২:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২৩

প্রযুক্তি ডেস্ক: সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোয় ছদ্মবেশী অ্যাকাউন্টের সংখ্যা বাড়ছে। এসব অ্যাকাউন্ট থেকে কাছের মানুষ বা বন্ধুদের সরাসরি মেসেজ (ডিএম) দেয়া হয়। অপরাধীদের দ্বারা অন্যের অ্যাকাউন্টের ছদ্মবেশ ধারণ নতুন কিছু নয়, আর যে কারও সঙ্গেই এটি ঘটতে পারে। দেখা গেল যে, ইনস্টাগ্রাম থেকে বন্ধুর ডিএম (ডিরেক্ট মেসেজ) পেয়েছেন, অথচ অ্যাকাউন্টটি চিনতে পারছেন না। এর মানে, আপনার বন্ধু কোনো অপরাধীর মাধ্যমে ছদ্মবেশের শিকার হয়েছেন। ইনস্টাগ্রামে আপনার বন্ধু বা অন্য কেউ যদি ছদ্মবেশের শিকার হন, সেক্ষেত্রে আপনার করণীয় কী? ইনস্টাগ্রামের নিয়ম বলছে, ছদ্মবেশের শিকার হয়েছে-এমন ব্যক্তিই কেবল রিপোর্ট করতে পারবে। তবে কিছু পদক্ষেপের মাধ্যমে কাছের বন্ধু বা ব্যক্তি তাকে সহায়তা করতে পারবে। এক্ষেত্রে ছদ্মবেশের শিকার ব্যক্তির সঙ্গে আপনি ডিএম, ই-মেইল বা সেলফোনে যোগাযোগ করুন। যেন এ বিষয়ে তিনি ইনস্টাগ্রামে রিপোর্ট করেন। যদি ছদ্মবেশের শিকার হওয়া অ্যাকাউন্টটি আপনি প্রতিনিধিত্ব করছেন এমন কারও (যেমন, আপনার সন্তানের) হয়, তাহলে এই ফরমটি ব্যবহার করে ইনস্টাগ্রাম কর্তৃপক্ষের কাছে রিপোর্ট করতে পারবেন।
যদি অন্য কেউ ইনস্টাগ্রামে আপনার ছদ্মবেশ ধারণ করে থাকে, সেক্ষেত্রে অবশ্যই অ্যাপ থেকে অথবা িি.িরহংঃধমৎধস.পড়স/যধপশবফ ভিজিট করে রিপোর্ট করতে হবে।
ছদ্মবেশী এ আক্রমণ থেকে সুরক্ষিত থাকার জন্য কিছু পদক্ষেপ নিতে পারেন-
* টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন (টুএফএ) চালু করুন এবং ইউনিক পাসওয়ার্ড বা পাসফ্রেজ ব্যবহার করুন। সেক্ষেত্রে অপরাধীদের জন্য কেবল ‘ফরগট পাসওয়ার্ড’ ব্যবহার করে অ্যাকাউন্টের দখল নিতে চাওয়া তুলনামূলকভাবে কঠিন হবে।
* যে ই-মেইল ও ফোন নম্বর ইনস্টাগ্রামে ব্যবহৃত হয়েছে, সেগুলো হালনাগাদ বা আপনার নিয়ন্ত্রণে আছে কি না, তা নিশ্চিত করুন।
* বাস্তব জীবনের মতোই অপরিচিত কারও ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন। আপনার ঠিকানা বা ফোন নম্বরের মতো একান্ত ব্যক্তিগত বা সংবেদনশীল তথ্য ইনস্টাগ্রামে প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকুন।
* সবসময় সাবধানতা অবলম্বন করুন এবং ইনস্টাগ্রাম অ্যাপের সিকিউরিটি চেকআপের মাধ্যমে আপনার সিকিউরিটি সেটিংস ম্যানেজ করুন।
* আপনার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলের ওপরের ডান দিকের কোণায় থাকা থ্রি-ড্যাশ মেনু বাটনে ট্যাপ করুন, সেটিংস অ্যান্ড প্রাইভেসি অপশন নির্বাচন করুন, অ্যাকাউন্টস সেন্টার ট্যাপ করুন, অ্যাকাউন্টস সেটিংসের অধীনে পাসওয়ার্ড অ্যান্ড সিকিউরিটি ট্যাপ করুন, সিকিউরিটি চেকসের অধীনে সিকিউরিটি চেকআপ ট্যাপ করুন, ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট সিলেক্ট করুন এবং তারপর ইনস্টাগ্রামের পরবর্তী নির্দেশনাবলি অনুসরণ করুন।