ঢাকা ১০:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::

আদানির বিদ্যুৎ ফিরল ৩ দিন পর

  • আপডেট সময় : ০২:৩৯:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪
  • ৪৮ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : যান্ত্রিক গোলযোগে তিনদিন বন্ধ থাকার পর ভারতের ঝাড়খণ্ড থেকে আদানি পাওয়ারের বিদ্যুৎ আবারও আসা শুরু হয়েছে। ঝাড়খণ্ড রাজ্যের গোড্ডায় আদানি গ্রুপের কয়লাভিত্তিক ওই কেন্দ্রের দুটি ইউনিট থেকে প্রতিদিন ১৪০০ থেকে ১৫০০ মেগাওয়াট হারে বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসছিল। এর একটি ইউনিটে রক্ষণাবেক্ষণ কাজ চলার মধ্যে গত শুক্রবার অপর ইউনিটটি বন্ধ হয়ে যায়।
আদানি পাওয়ারের একজন মুখপাত্র (বাংলাদেশ) জানান, ত্রুটি সারানোর পর সোমবার ভোররাতে একটি ইউনিট পুনরায় চালু হয়েছে। দুপুর নাগাদ সেখান থেকে ‘ফুল লোডে’ বিদ্যুৎ আসা শুরু করেছে। অপর ইউনিট আগামী ৫ জুলাই চালু করার সম্ভাব্য তারিখ রাখা হয়েছে। রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আদানি পাওয়ারের ৭৪৮ ইউনিট উৎপাদন ক্ষমতার একটি ইউনিট গত ২৫ জুন থেকে বন্ধ। কম উৎপাদনের মধ্যেও দিনভর বৃষ্টিপাত চলতে থাকায় বিদ্যুতের চাহিদা কমে গেছে। লোডশেডিং কমে দেড়শ মেগাওয়াটের মধ্যে চলে এসেছে। বিকাল ৩টায় ১২ হাজার ৮৫০ মেগাওয়াট চাহিদার বিপরীতে উৎপাদন ছিল ১২ হাজার ৭০২ মেগাওয়াট। রোদ বেশি থাকলে এই সময় অন্যান্য দিন ১৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের প্রয়োজন হয়।

 

 

যোগাযোগ

সম্পাদক : ডা. মোঃ আহসানুল কবির, প্রকাশক : শেখ তানভীর আহমেদ কর্তৃক ন্যাশনাল প্রিন্টিং প্রেস, ১৬৭ ইনার সার্কুলার লার রোড, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত ও ৫৬ এ এইচ টাওয়ার (৯ম তলা), রোড নং-২, সেক্টর নং-৩, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা-১২৩০ থেকে প্রকাশিত। ফোন-৪৮৯৫৬৯৩০, ৪৮৯৫৬৯৩১, ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৭৯১৪৩০৮, ই-মেইল : [email protected]
আপলোডকারীর তথ্য

আমানতের অর্থ লুটে খাচ্ছে ব্যাংক : পিআরআই

আদানির বিদ্যুৎ ফিরল ৩ দিন পর

আপডেট সময় : ০২:৩৯:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জুলাই ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক : যান্ত্রিক গোলযোগে তিনদিন বন্ধ থাকার পর ভারতের ঝাড়খণ্ড থেকে আদানি পাওয়ারের বিদ্যুৎ আবারও আসা শুরু হয়েছে। ঝাড়খণ্ড রাজ্যের গোড্ডায় আদানি গ্রুপের কয়লাভিত্তিক ওই কেন্দ্রের দুটি ইউনিট থেকে প্রতিদিন ১৪০০ থেকে ১৫০০ মেগাওয়াট হারে বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসছিল। এর একটি ইউনিটে রক্ষণাবেক্ষণ কাজ চলার মধ্যে গত শুক্রবার অপর ইউনিটটি বন্ধ হয়ে যায়।
আদানি পাওয়ারের একজন মুখপাত্র (বাংলাদেশ) জানান, ত্রুটি সারানোর পর সোমবার ভোররাতে একটি ইউনিট পুনরায় চালু হয়েছে। দুপুর নাগাদ সেখান থেকে ‘ফুল লোডে’ বিদ্যুৎ আসা শুরু করেছে। অপর ইউনিট আগামী ৫ জুলাই চালু করার সম্ভাব্য তারিখ রাখা হয়েছে। রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আদানি পাওয়ারের ৭৪৮ ইউনিট উৎপাদন ক্ষমতার একটি ইউনিট গত ২৫ জুন থেকে বন্ধ। কম উৎপাদনের মধ্যেও দিনভর বৃষ্টিপাত চলতে থাকায় বিদ্যুতের চাহিদা কমে গেছে। লোডশেডিং কমে দেড়শ মেগাওয়াটের মধ্যে চলে এসেছে। বিকাল ৩টায় ১২ হাজার ৮৫০ মেগাওয়াট চাহিদার বিপরীতে উৎপাদন ছিল ১২ হাজার ৭০২ মেগাওয়াট। রোদ বেশি থাকলে এই সময় অন্যান্য দিন ১৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের প্রয়োজন হয়।