রবি. নভে ১৭, ২০১৯

হাড়ের সংযোগস্থলের ব্যথা কমানোর খাবার

হাড়ের সংযোগস্থলের ব্যথা কমানোর খাবার

Last Updated on

প্রত্যাশা ডেস্ক : কিছু খাবার হাড়ের সংযোগস্থলের ব্যথার তীব্রতা কমাতে সাহায্য করে। হাড়ের ব্যথা কমানোর জন্য চাই জীবনযাপন ও খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন। প্রকৃতিতে এরকম কিছু খাবার রয়েছে যা হাড়ের ব্যথা কমাতে পারে। খাদ্য ও পুষ্টি-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে সেসব খাবারের নাম এখানে দেওয়া হল।
পালংশাক: এতে আছে উচ্চমাত্রার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, সংক্রমণরোধী, ব্যথানাশক এবং আস্টিওয়ার্থ্রাইটিস বা গেঁটে বাত নাশক উপাদান। তাই পালংশাকের তৈরি যেকোন খাবার খাওয়া উপকারী।
মাছ: তৈলাক্ত মাছ যেমন- স্যামন, টুনা ইত্যাদি তৈলাক্ত মাছ উচ্চ ওমেগা-থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ যা সংক্রমণের বিরুদ্ধে কাজ করে এবং সংযোগস্থলের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। এতে বেশি পরিমাণে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়, যা আর্থ্রাইটিস এবং এই ধরনের অন্যান্য রোগের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।
শুকনা ফল: বাদাম পুষ্টিকর। তবে আখরোট, পেস্তাবাদাম এবং কাঠবাদাম উচ্চ ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ভিটামিন ই, প্রোটিন এবং আলফা-লিনোলেনিক উপাদান সমৃদ্ধ। যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আখরোট উচ্চ ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ যা অস্টিওআর্থ্রাইটিস বা গেঁটে বাত এবং রেমাটোয়েড বাতের ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে।
টক ফল: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি সাহায্য করে। কমলা, আঙ্গুর এবং অন্যান্য টক ফল বাত এবং হাড়ের সংযোগস্থলের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।
রসুন: রক্তচাপ কমানোর পাশাপাশি এটা হৃদরোগে ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। রসুন উচ্চ-অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান সমৃদ্ধ এবং অস্টিওআর্থ্রাইটিস এবং ব্যথা কমায়।

Please follow and like us:
3