শুক্র. এপ্রি ১৯, ২০১৯

সড়ক দুর্ঘটনায় পাঁচ জেলায় ১৪ মৃত্যু

সড়ক দুর্ঘটনায় পাঁচ জেলায় ১৪ মৃত্যু

Last Updated on

প্রত্যাশা ডেস্ক : সারাদেশে সড়ক দুঘটনা কিছুতেই থামছে না। নানা কারণে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়েই চলেছে। গত রোববার রাত ও গতকাল সোমবার পাঁচ জেলায় নিহত হয়েছেন ১৪ জন। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদÑ
গোপালগঞ্জ থেকে খুলনায় নতুন কেনা গাড়িতে ঘুরতে বের হয়ে নিহত পাঁচ বন্ধু : নতুন কেনা গাড়ি নিয়ে বেড়াতে বের হয়ে আর ফেরা হলো না পাঁচ বন্ধুর। খুলনার রূপসা ব্রিজ এলাকায় গত রোববার রাতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন তারা। নিহত সবার বাড়ি গোপালগঞ্জ। তারা স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতা ছিলেন।
গত রোববার সদর থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি সাদিকুল আলমের সদ্য কেনা প্রাইভেট কারে খুলনায় বেড়াতে যান পাঁচ বন্ধু। রাত পৌনে ১২টার দিকে খুলনা থেকে গোপালগঞ্জের উদ্দেশে ফেরার পথে রূপসা ব্রিজের কাছে লবণচরা হরিণটানা এলাকায় পৌঁছালে সিমেন্টবোঝাই একটি ট্রাকের সঙ্গে প্রাইভেট কারটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন পাঁচ বন্ধু। সাদিকুলই ছিলেন চালকের আসনে। নিহত পাঁচজন হলেনÑ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সবুজবাগের ওয়াদুদ মিয়ার ছেলে গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল হক বাবু (২৬), সদর উপজেলার সবুজবাগের মৃত আলাউদ্দিন সিকদারের ছেলে ও সদর থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি সাদিকুল আলম (৩২), থানাপাড়ার গাজী মিজানুর রহমান হিটুর ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের ছাত্র উপবৃত্তিবিষয়ক সম্পাদক গাজী ওয়ালিদ মাহমুদ উৎসব (২৫), গেটপাড়ার রসুলপাড়ার আলমগীর হোসেনের ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সাজু আহমেদ (২৪), চাঁদমারি রোডে অহিদ গাজীর ছেলে ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের ছাত্রলীগের স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক অনিমুল ইসলাম (২৪)। সাদিকুল ছাড়া সবাই স্থানীয় কলেজের শিক্ষার্থী ছিলেন। পাঁচ নেতার মৃত্যুতে স্থানীয় রাজনৈতিক অঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।
শহরের থানাপাড়ায় গিয়ে দেখা যায়, দুর্ঘটনায় নিহত গাজী ওয়ালিদ মাহমুদ উৎসবের বাড়িতে চলছে স্বজনদের আহাজারি। একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে পাগলপ্রায় গোটা পরিবার। উৎসব জেলা আওয়ামী লীগ নেতা গাজী মিজানুর রহমানের ছেলে ও প্রধানমন্ত্রীর অ্যাসাইনমেন্ট অফিসার গাজী হাফিজুর রহমানের ভাইয়ের ছেলে। গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান বলেন, এই মর্মান্তিক মৃত্যু গোপালগঞ্জবাসীকে মর্মাহত করেছে। এই মৃত্যুতে গোপালগঞ্জে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। আজ যে পাঁচটি ছেলে আমাদের ছেড়ে চলে গেছে, তাদের সামনে সোনালি স্বপ্ন ছিল। তাদের মৃত্যুতে জেলা আওয়ামী লীগ পাঁচজন ভবিষ্যৎ মেধাবী নেতা হারাল। লবণচরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, পাঁচ বন্ধু একটি ব্যক্তিগত গাড়িতে করে খুলনায় বেড়াতে গিয়েছিলেন। গাড়িটি খুলনা মহানগরীর জিরো পয়েন্ট এলাকা থেকে গোপালগঞ্জ ফেরার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয়। তিনি বলেন, খেজুরবাগান অতিক্রম করার সময় ‘মানসিক ভারসাম্যহীন এক ভবঘুরে’ প্রাইভেট কারের সামনে এসে পড়ে। এ সময় চালক তাকে বাঁচাতে গেলে বিপরীত দিক থেকে মোংলা থেকে আসা জিরো পয়েন্টগামী সিমেন্টবোঝাই ট্রাকের সঙ্গে প্রাইভেটকারটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। তিনি আরো বলেন, তারা পাঁচজনই বন্ধুর মতো চলাফেরা করতেন। মাদকবিরোধী সংগঠনেও সক্রিয় ছিলেন তারা। গতকাল সোমবার বাদ জোহর স্থানীয় শেখ মনি স্টেডিয়ামে তাদের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
এদিকে, এ ঘটনায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি, মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি শেখ ফজলে ফাইম, যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা শেখ ফজলে নাঈম দুর্ঘটনায় নিহত পাঁচ ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতার অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন। এ ছাড়া তারা শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।
খুলনায় পিকনিকের বাস খাদে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু : খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগরে পিকনিকের বাস খাদে পড়ে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছে অন্তত ২৫ শিক্ষার্থী। গতকাল বেলা ১১টার দিকে উপজেলার চুকনগরের চাকুন্দিয়া মাদ্রাসার পাশে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত মেঘলা যশোর জেলার সদরের শ্যামনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। চুকনগরের হাইওয়ে পুলিশের এসআই ওমর ফারুক বলেন, শ্যামনগর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৬০-৭০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে বাসটি সতক্ষীরা যাচ্ছিল। পথে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি রাস্তার পাশে একটি খাদে পড়ে উল্টে যায়। এ সময় বাসের নিচে চাপা পড়ে এক ছাত্রী নিহত হয়।
মুন্সীগঞ্জে কাভার্ডভ্যানে প্রাইভেটকারের ধাক্কা, নিহত ৩ : মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় প্রাইভেটকার দুর্ঘটনায় স্বামী-স্ত্রীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরো একজন। গতকাল বেলা সোয়া ১২টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গজারিয়ার ভবেরচর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেনÑ চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার বাসিন্দা গ্রামীণ ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান (৭০), তার স্ত্রী জেসমিন সুলতানা (৫৫) ও চাঁদপুরের দক্ষিণ মতলব উপজেলার শিবপুর এলাকার মো. মোকবুলের ছেলে প্রাইভেটকারের চালক আব্দুল্লাহ সরকার (৩৩)। ভবেরচর হাইওয়ের পুলিশের টি আই জহিরুল ইসলাম জানান, বেলা সোয়া ১২টার দিকে ভবেরচর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় চাঁদপুর থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পেছন থেকে একটি কাভার্ডভ্যানকে ধাক্কা দেয়। এতে প্রাইভেটকারটি দুমড়ে মুচড়ে যায় এবং ঘটনাস্থলেই প্রাইভেটকারে থাকা সিদ্দিকুর রহমান, তার স্ত্রী ও গাড়িচালক নিহত হন। এ সময় আহত হন গাড়িতে থাকা আরো একজন। তার নাম জানা যায়নি। ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরো জানান, নিহতদের মরদেহ উদ্ধার এবং দুর্ঘটনা কবলিত কাভার্ডভ্যান ও প্রাইভেটকার আটক করা হয়েছে।
রংপুরে দুই ট্রাকের সংঘর্ষে এক চালক নিহত : রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় দুই ট্রাকের সংঘর্ষে এক চালক নিহত এবং আরেক চালক আহত হয়েছেন। উপজেলার কলাবড়ই এলাকার ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানায়। নিহত চালক রফিকুলের বাড়ি পীরগঞ্জ থানায়। আহত একজনকে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। রংপুর হাইওয়ে পুলিশের এসআই মোয়াজ্জেম বলেন, রংপুর থেকে ঢাকাগামী একটি ট্রাকের সঙ্গে বিপরীতমুখী আরেকটি ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই এক ট্রাকের চালকের মৃত্যু হয়।
নওগাঁয় পিকনিকের বাস চাপায় বাইসাইকেল আরোহী নিহত : নওগাঁ শহরে পিকনিকের বাস চাপায় এক বাইসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। সান্তাহার টাউন ফাঁড়ির পরিদর্শক আবদুল ওয়াদুদ জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শহরের বাইপাস সড়কের পালকি কমিউনিটি সেন্টারের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত জিয়াউল হক জিয়া নওগাঁ শহরের পার নওগাঁ চক আবদাল এলাকার আবু তালেব সরদারের ছেলে। পরিদর্শক ওয়াদুদ বলেন, জিয়া সাইকেলে করে বাড়ি থেকে কর্মস্থল সান্তাহারের ইছামতি রাইস মিলে যাচ্ছিলেন। পথে তিলকপুর প্রি-ক্যাডেট মাদ্রাসার রাজশাহীগামী একটি পিকনিকের বাস জিয়াকে চাপা দিয়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ সময় বিক্ষুদ্ধ জনতা পিকনিকের তিনটি বাস আটকে ভাংচুর করে।
রাজধানী ঢাকায় ট্রাকচাপায় নারী নিহত : ঢাকার বাড্ডায় রাস্তা পার হওয়ার সময় ট্রাকের চাপায় এক নারী নিহত হয়েছেন। গত রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মধ্যবাড্ডার ইউলুপ ও ফুটওভার ব্রিজের মাঝামাঝি স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে। নিহতের নাম জিন্না (৫০)। ট্রাকের চাপায় ওই নারীর দুই পা কোমর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বাড্ডা থানার ওসি মো.রফিকুল ইসলাম বলেন, ছেলে তোফায়েলকে নিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় ট্রাকের চাপায় ঘটনাস্থলেই ওই নারীর মুত্যু হয়। পুলিশ ট্রাকটি আটক করলেও, এর চালক পালিয়ে গেছে। জিন্না বাড্ডা এলাকায় থাকতেন। তার বাড়ি গোপালগঞ্জে। তার স্বামীর নাম জাফর আলী।

Please follow and like us:
0