স্টেইনের রেকর্ড গড়ার ম্যাচে দ. আফ্রিকার নাটকীয় জয়

স্টেইনের রেকর্ড গড়ার ম্যাচে দ. আফ্রিকার নাটকীয় জয়

ক্রীড়া ডেস্ক : ফেরার ম্যাচে গড়লেন রেকর্ড। ইমরান তাহিরকে ছাড়িয়ে টি-টোয়েন্টিতে উইকেট শিকারীদের তালিকার চূড়ায় উঠলেন এককভাবে। ডেল স্টেইনের প্রাপ্তির দিনে দক্ষিণ আফ্রিকা পেল নাটকীয় জয়। লুঙ্গি এনগিডির দারুণ বোলিংয়ে রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে পেরে উঠল না ইংল্যান্ড। প্রথম ম্যাচে ১ রানে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে গেছে কুইন্টন ডি ককের দল। ১৭৭ রান তাড়ায় ৯ উইকেটে ১৭৬ রানে থেমেছে ওয়েন মর্গ্যানের দল।
জয়ের জন্য শেষ ওভারে ৭ রান প্রয়োজন ছিল ইংল্যান্ডের। প্রথম ৩ বলে চার রান দিয়ে টম কারানের উইকেট তুলে নেন এনগিডি। শেষ ২ বলে প্রয়োজন ছিল ৩ রান, টাই করতে ২। সেই দুই বলে ১ রান তুলতে মইন আলি ও আদিল রশিদের উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। ইস্ট লন্ডনের বাফেলো পার্কে বুধবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দারুণ করে দক্ষিণ আফ্রিকা। ১৫ বলে ৩১ রানের বিস্ফোরক ইনিংসে স্বাগতিকদের উড়ন্ত সূচনা এনে দেওয়া ডি কককে থামিয়ে শুরুর জুটি ভাঙেন মইন। টেম্বা বাভুমা ও রাসি ফন ডার ডাসেনের ব্যাটে এগিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ১০ ওভারে ছাড়ায় একশ। এরপরই ছন্দপতন। ৩১ রান করা ফন ডার ডাসেনকে ফিরিয়ে ৬৩ রানের জুটি ভাঙেন বেন স্টোকস।
এরপর আর তেমন কোনো জুটি গড়তে পারেনি স্বাগতিকরা। ২৭ বলে পাঁচ চারে ৪৩ রান করা বাভুমাকে বিদায় করেন রশিদ। ডেভিড মিলার, জেজে স্মাটস, আন্দিলে ফেলুকওয়ায়ো পারেননি প্রত্যাশিত ঝড় তুলতে। শেষের দিকে ৭ রানের মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকা হারায় চার উইকেট। রান তাড়ায় শুরুতেই উইকেট হারায় ইংল্যান্ড; তৃতীয় ওভারে আঘাত হানেন স্টেইন। জস বাটলারকে ফিরিয়ে ছাড়িয়ে যান তাহিরকে। ৬২ উইকেট নিয়ে ওঠেন টি-টোয়েন্টিতে দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেট শিকারীদের তালিকার শীর্ষে। আরেক ওপেনার জেসন রয় শুরু থেকে চড়াও হন বোলারদের ওপর। দ্রুত এগোতে থাকে ইংল্যান্ড। জনি বেয়ারস্টোকে থামিয়ে ৭২ রানের জুটি ভাঙেন ফেলুকওয়ায়ো।
অধিনায়ক মর্গ্যানের সঙ্গে রয়ের ৪১ রানের জুটিতে ২ উইকেটে ১৩২ রানের দৃঢ় ভিতের ওপর দাঁড়ায় ইংল্যান্ড। ৩৮ বলে তিন ছক্কা ও সাত চারে ৭০ রান করা রয়কে থামিয়ে বিপজ্জনক হয়ে ওঠা জুটি ভাঙেন বিউরান হেনড্রিকস। জো ডেনলি, স্টোকস, কারানের দ্রুত বিদায়ে শঙ্কায় পড়ে যায় ইংল্য্যান্ড। আশা হয়ে টিকে থাকা মর্গ্যান-ঝড় থামান হেনড্রিকস। ইংলিশ অধিনায়ক ৩৪ বলে সাত চার ও এক ছক্কায় ফিরেন ৫২ রান করে। এরপর এনগিডিরে সেই দারুণ ওভার। শেষ বলে দুই রান নিতে গিয়ে রশিদ রান আউট হয়ে গেলে ম্যাচ যায়নি সুপার ওভারে। আগামী শুক্রবার ডারবানে হবে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
দক্ষিণ আফ্রিকা: ২০ ওভারে ১৭৭/৮ (বাভুমা ৪৩, ডি কক ৩১, ফন ডার ডাসেন ৩১, মিলার ১৬, স্মাটস ২০, ফেলোকওয়ায়ো ১৮, প্রিটোরিয়াস ১, হেনড্রিকস ০, স্টেইন ৫*; মইন ৪-০-২২-১, কারান ৩-০-৪১-১, উড ৩-০-৩২-১, জর্ডান ৩-০-২৮-২, রশিদ ৪-০-২৩-১, স্টোকস ৩-০-২৪-১)
ইংল্যান্ড: ২০ ওভারে ১৭৬/৯ (রয় ৭০, বাটলার ১৫, বেয়ারস্টো ২৩, মর্গ্যান ৫২, ডেনলি ৩, স্টোকস ৪, মইন ৫, কারান ২, জর্ডান ০*, রশিদ ১; স্টেইন ৪-০-৩৩-১, এনগিডি ৪-০-৩০-৩, স্মাটস ১-০-২২-০, ফেলুকওয়ায়ো ৪-০-৩২-২, শামসি ৪-০-২৫-০, হেনড্রিকস ৩-০-৩৩-২)
ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ১ রানে জয়ী
ম্যান অব দা ম্যাচ: লুঙ্গি এনগিডি

Please follow and like us: