সূর্যের নিকটতম গ্রহের দিকে যাত্রা শুরু করল বেপিকলম্বো

সূর্যের নিকটতম গ্রহের দিকে

প্রত্যাশা ডেস্ক : সূর্যের নিকটতম বুধগ্রহের দিকে শনিবার যাত্রা শুরু করেছে বেপিকলম্বো নভোযান। জাপান এরোস্পেস এক্সপে¬ারেশন এজেন্সি (জাক্সা) জানায়, ইউরোপের ফ্রেঞ্চ গিয়ানা মহাকাশ বন্দর থেকে নভোযানটি প্রেরণ করা হয়।
এই নিয়ে মাত্র তৃতীয়বার পৃথিবী থেকে বুধের দিকে কোনো নভোযান পাঠানো হলো। ইউরোপ ও জাপানের মহাকাশ সংস্থাগুলো এই অনুসন্ধানী অভিযানটি পরিচালনা করছে। ‘বেপিকলম্বো উৎক্ষেপণ ইএসএ ও জাক্সার জন্য একটা বিশাল অর্জন এবং আরও বিরাট সাফল্য আশা করা হচ্ছে। এই দুঃসাধ্য যাত্রা সম্পূর্ণ করার সঙ্গে সঙ্গে এটি বিজ্ঞানের জন্য ব্যাপক ফলপ্রসূ হবে।’ এক বিবৃতিতে বলেন ইয়ান ওয়ের্নার, ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি বা ইএসএ’র ডিরেক্টর জেনারেল । বুধে পৌঁছাতে বেপিকলোম্বোর সাত বছর সময় লাগবে।
সূর্যের কাছাকাছি হওয়ার কারণে বুধের দিকে খুবই অল্প সংখ্যক মাহাকাশযান প্রেরণ করা হয়েছে। সূর্য থেকে বুধের দূরত্ব মাত্র ছয় কোটি কিলোমিটার, যেখানে সূর্য থেকে পৃথিবীর দূরত্ব প্রায় ১৫ কোটি কিলোমিটার। বুধের পৃষ্ঠদেশের তাপমাত্রা দিনের বেলা ৭৫২ ফারেনহাইট থেকে রাতের বেলা মাইনাস ৩৩৮ ফারেনহাইট পর্যন্ত ওঠানামা করতে পারে। আগে, ১৯৭৩ সালে পাঠানো নাসার মেরিনার নভোযান বুধের উপরিতলের মাত্র ৪৫ শতাংশের ম্যাপ তৈরি করতে পেরেছিল। এরপর ২০০৪ সালে এই জরিপ সম্পন্ন করতে মেসেঞ্জার নভোযান পাঠানো হয়। ইতালীয় গণিতজ্ঞ ও প্রকৌশলী জুসেপ্পে (বেপি) কলোম্বোর নাম অনুসারে নভোযানটির নামকরণ করা হয়েছে। এটি পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণ শক্তির ভিতর দেড় বছর ঘুরতে ঘুরতে গতি সংগ্রহ করার পর এই বলয় ছেড়ে বেরিয়ে যাবে। নভোযানটি শুক্রগ্রহের পাশে দিয়ে উড়ে যাবে দু’বার। এরপর বুধগ্রহের কক্ষপথে প্রবেশের আগে সেটির পাশ দিয়ে উড়ে যাবে ছয়বার।

এই সময় বেপিকলম্বো বুধের কক্ষপথে আরও দু’টি নভোযানকে ছেড়ে দিবে। একটি হচ্ছে ইএসএ’ মার্কারি প¬্যানেটারি অরবিটার (এমপিও) এবং জাক্সার মার্কারি ম্যাগনেটোস্ফেরিক অরবিটার (এমএমও)। এমপিও বুধগ্রহের পৃষ্ঠদেশ এবং তার আভ্যন্তরীণ গঠন নিয়ে অনুসন্ধান চালিয়ে এতে থাকা লোহার পরিমাণ নির্ধারণ করবে। এমএমও গ্রহটির চৌম্বক বলয় সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করবে। নভোযান দু’টি একবছর গ্রহটি পর্যবেক্ষণ করবে। তবে, পরীক্ষানিরীক্ষার এই সময়সীমা আরও এক বছর বাড়ানো হতে পারে।

Please follow and like us:
0