সামনের গ্রীষ্ম হবে প্রায় স্বাভাবিক : বিল গেটস

সামনের গ্রীষ্ম হবে প্রায়

প্রত্যাশা ডেস্ক : সামনের গ্রীষ্মের মধ্যে অনেক কিছুই স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে বলে বিশ্বাস মাইক্রোসফট সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের। কোভিড-১৯ টিকা অনুমোদনে নোংরা কোনো বিস্ময় না আসলেই এমনটা সম্ভব বলে মনে করছেন গেটস। টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গেটস বলেছেন, ‘গ্রীষ্মের মধ্যে অনেক কিছু স্বাভাবিক হবে, এমন সম্ভাবনা অনেক বেশি। যদি টিকার অনুমোদন দ্রুতই আসে।’
ফাইজার এবং মডার্নার দুইটি টিকা ইতোমধ্যেই ৯০ শতাংশ কার্যকরি ফল দিয়েছে এবং জরুরি অবস্থায় প্রয়োগের জন্য অনুমোদন প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে। ২০২১ সালের গ্রীষ্মে নিজের দর্শন নিয়ে গেটস বলেছেন, ‘আমরা অফিসে যেতে পারবো এবং রেস্টুরেন্ট ও বার খুলতে পারবো এবং বলতে পারবো এই সময়ের চেয়ে আমরা পুরোপুরি ভিন্ন অবস্থানে রয়েছি।’
সিএনএনকে গেটস বলেছেন, ‘আমরা পুরো দেশ, সব শহরকে স্কুলে ফেরাতে পারবো। আমি মনে করি এটি অর্জন করা সম্ভব এবং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি লক্ষ্য।’ টিকা নিয়ে ভয়ঙ্কর কিছু তথ্যও তুলে ধরেছেন মাইক্রোসফট সহ-প্রতিষ্ঠাতা। ‘জরুরি অবস্থা এবং সংখ্যা অত্যন্ত ভয়ানক। আপনি জানেন, যদি আজকে সব টিকা দেওয়া হয়, আমাদের এক হাজার কোটির বেশি ডোজ লাগবে বিশ্বের বড় একটি অংশের জন্য।’ করোনাভাইরাস মহামারী মোকাবেলায় বৈশ্বিক প্রচেষ্টায় সহযোগিতা করতে ৩৫ কোটি মার্কিন ডলারের বেশি অর্থ সহায়তা করারও অঙ্গীকার করেছে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন।
মার্কিন ধনকুবের ও জনহিতৈষী ব্যক্তিত্ব বিল গেটস মনে করেন, ফেব্রুয়ারি নাগাদ প্রায় সব করোনাভাইরাস টিকা কাজ করবে। সম্প্রতি সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি। করোনাভাইরাস টিকা উন্নয়নের ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করছেন গেটস। সামনে দুটি করোনাভাইরাস টিকা যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফেডারেল ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’ এর অনুমোদন পেতে পারে। এর একটি ফাইজারের, আর অন্যটি মডার্নার। আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে, প্রতিষেধকগুলো করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ৯৫ শতাংশ কার্যকরী ভূমিকায় লড়তে পারবে।
গেটস আশাবাদী অন্যান্য করোনাভাইরাস টিকা নিয়েও। অনেক প্রতিষ্ঠানের টিকা তৈরির খবর এখনও সংবাদ শিরোনামে জায়গা করে নেয়নি। এরকম প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে, নোভাভ্যাক্স, অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং জনসন অ্যান্ড জনসন। গেটস বলেছেন, ‘প্রায় সব টিকাই কাজ করবে বড় মাপের কার্যকরী মাত্রায়।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি আশাবাদী ফেব্রুয়ারি নাগাদ প্রত্যেকটিই খুব কার্যকর এবং নিরাপদ হিসেবে প্রমাণিত হবে।’ তবে, বিপদ রাতারাতি কাটবে না বলেও ইঙ্গিত করেছেন তিনি।
‘আমাদের আগামী ছয় মাস নিয়ে খুব চিন্তিত থাকা উচিত।’ -শঙ্কা প্রকাশ করেছেন গেটস। তিনি ধারণা করছেন, যুক্তরাষ্ট্রে শীতের প্রায় পুরোটা জুড়েই প্রতিদিন করোনাভাইরাস মৃত্যু দুই হাজার ছাড়াবে। টিকা পরীক্ষা ও বিতরণ ভিত্তিক সমস্যা নিয়েও আলোচনা করেছেন তিনি। গেটসের বিশ্বাস, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে উঠা সম্ভব হবে। ‘আমার মনে হয় কিছুটা ত্রুটিপূর্ণ পন্থায় লজিস্টিকসের সমাধান হবে।’ -বলেছেন তিনি। ‘সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমরা রোগ সংক্রমণ রোধে প্রয়োজনীয় ৭০ শতাংশের বেশি মাত্রায় যেতে পারব।’-যোগ করেছেন গেটস। গেটস এবার নিজস্ব থ্যাংকসগিভিং নৈশভোজ সংক্ষিপ্ত রাখবেন বলে জানিয়েছেন। অনুপস্থিত পারিবারিক সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে ভিডিও কলের আয়োজন করবেন গেটস। মার্কিনীদের মাস্ক পড়তে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহবানও জানিয়েছেন তিনি। ‘চেষ্টা করুন, যাতে আপনার পরিবারকে এই মহামারীর শেষ মৃত্যুর শিকার না হতে হয়। কারণ বসন্ত পর্যন্ত আপনাকে এটি পার করতে হবে, ওই সময়টিতেই প্রতিষেধক আসলে সংখ্যা কমানো শুরু করবে।’ -যোগ করেছেন গেটস।

Please follow and like us: