বৃহঃ. আগ ২২, ২০১৯

শ্রীলঙ্কান নারীকে হত্যায় দুইজনের যাবজ্জীবন

শ্রীলঙ্কান নারীকে হত্যায় দুইজনের যাবজ্জীবন

Last Updated on

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর শ্যামপুরে শ্রীলঙ্কান নাগরিক এক নারীকে হত্যার মামলায় পলাতক দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। দেড় দশক আগের হত্যা মামলাটির বিচার শেষে গতকাল বুধবার ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ শেখ হাফিজুর রহমান রায় ঘোষণা করেন।
দণ্ডিতরা হলেন- চাঁদপুরের মতলব উপজেলার মৃত কফিল উদ্দিনের ছেলে মফিজ উদ্দিন সরকার ওরফে মফিজ এবং রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার মৃত আবুলের ছেলে আবু জাহের ওরফে জাহের খান।
দণ্ডের পাশাপাশি প্রত্যেককে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন বলে আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ কৌসুঁলি মো. বেলায়েত হোসেন ঢালী জানিয়েছেন।
অন্যদিকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আবুল হোসেন নামে আরেক আসামিকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন বিচারক। শ্রীলঙ্কার নাগরিক সুহারা উম্মা হত্যার ঘটনায় তার দেবর আব্বাস আলী ২০০৪ সালের ২৮ জানুয়ারি শ্যামপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে এসআই সোহেল আহমেদ তিন জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। বিচার চলার সময়ে অভিযোগপত্রভুক্ত ২২ সাক্ষীর মধ্যে ১২ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়। অভিযোগপত্রে বলা হয়, বাদীর ভাই জহিরুল ইসলাম ওরফে হাফিজ কুয়েত থাকাকালে শ্রীলঙ্কান নাগরিক সুহারা উম্মার সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পর তারা বিয়ে করেন। দেশে ফিরে তারা শ্যামপুরের জিয়া সরণি গ্যাস রোডে বসবাস করতে থাকেন। ২০০৪ সালের ২৭ জানুয়ারি সন্ধ্যায় সুহারা উম্মার বাসায় তাদের ভাড়াটিয়া আবুল হোসেনের ভায়রা মফিজ ও তার এক বন্ধু যায়। ‘কু-প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায়’ তারা সুহারা উম্মাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

Please follow and like us:
2