শিল্পখাতে নারীর কর্মসংস্থান সংকুচিত হচ্ছে

নারীজীবন ডেস্ক : প্রত্যেক বছরই শিল্পখাতে নারীর কর্মসংস্থান ক্রমেই সংকুচিত হয়ে আসছে। পুরুষের সঙ্গে সমান তাল মিলিয়ে শিল্পখাতে নারীরা অবদান রাখতে অক্ষম বলে এটা হচ্ছে।
সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে ‘প্রোমোটিং ফিমেল এমপ্লয়মেন্ট ইন বাংলাদেশ ফর রিয়েলাইজিং ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্স’ প্রতিবেদনে এই তথ্য জানায় সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি)। সিপিডি বলেছে, ২০০২ সাল থেকে শিল্পখাতে নারীর কর্মসংস্থান কমতে শুরু করে। এরপর থেকে ক্রমান্বয়ে ২০১৩-১৬ সাল পর্যন্ত অর্থাৎ তিন বছরে শিল্পখাতে নারীর কর্মসংস্থান কমেছে সাড়ে আট লাখ। নারীদের বিপরীতে এ খাতে পুরুষের অংশগ্রহণ ৮০ দশমিক ৫ শতাংশ। যেখানে নারীর অংশগ্রহণ মাত্র ৩৬ দশমিক ৩ শতাংশ। সিপিডির বিশেষ ফেলো মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘ভাবা হয় নারীরা পুরুষের সমান শিল্পখাতে অবদান রাখতে পারবে না। এজন্য শিল্পখাতে সংকুচিত হচ্ছে নারীর কর্মসংস্থান। বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন নারীরা।’
মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘নারীবান্ধব কর্মক্ষেত্র সৃষ্টি করতে হবে। তা না হলে প্রতিনিয়তই কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ কমে যাবে। তাছাড়া, নারীরা কম মজুরিতে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করেন, এটাও বন্ধ করা দরকার। সেইসঙ্গে, নারীরা যেসব সামাজিক সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন তা রোধ করতে হবে।’ প্রতিষ্ঠানটির অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম বলেন, ‘প্রবৃদ্ধি বাড়াতে হলে নারীদের জন্য বেশি বেশি কর্মক্ষেত্র সৃষ্টি করতে হবে। বিশ্বব্যাপী কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বাড়ছে আমাদেরও সেই পথে হাঁটতে হবে। খাবার রান্না ও গৃহস্থালি কাজের স্বীকৃতি পায় না নারী। এসব কাজ জিডিপিতে অন্তর্ভুক্তি দরকার। এগুলো গণনা করা হলে জিডিপিতে নারীদের অবদান ৭৭ থেকে ৮৭ শতাংশ হতে পারতো।’  অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত মিকাইল হেমিনিতি উইন্থার ও সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন প্রমুখ।

Please follow and like us:
0