রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ৪ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর পৃথক স্থানে চারজনের অপমৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে মাদকাসক্ত ছেলের হাতে এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক কলেজছাত্র ও ট্রেনের ধাক্কায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া এসির কাজ করার সময় ভবন থেকে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। জানা গেছে, রাজধানীর দক্ষিণখানে মাদকাসক্ত সৎ ছেলে ইয়াসিনের হাতে খুন হয়েছে বাবা মোহর উদ্দীন মিলন (৪০)। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে দক্ষিণখান থানার কোটবাড়ি চড়ইটেক এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহততের ভাই হৃদয় জানায়, আগের স্ত্রী মারা যাওয়ায় মোহর উদ্দীন মিলন ছেলে ইয়াসিনের মাকে বিয়ে করেন। ইয়াসিন মাদকাসশক্ত হওয়ায় প্রায় তাদের মধ্যে বিবাদ হতো। গত শুক্রবার রাতে বিবাদের একপর্যায়ে ইয়াসিন ছুরি দিয়ে মোহর উদ্দীনকে আঘাত করে। এ সময় গুরুতর অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে রাত সাড়ে ১০টায় মারা যান তিনি। হৃদয় আরও জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার কোতায়ালিতে। তার বাবার নাম মোহাম্মদ আলী। ঢাকা মেডিকেলের পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় অবগত করা হয়েছে।
বিদ্যুৎস্পৃষ্টে কলেজছাত্রের মৃত্যু: রাজধানীর মতিঝিল থানাধীন দক্ষিণ কমলাপুরে ক্রিকেট খেলার সময় বল আনতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ফেরদৌস হাসান শুভ (১৮) নামে এক কলেজছাত্রের মৃৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মৃতের প্রতিবেশী সাহাদৎ হোসেন জানান, দক্ষিণ কমলাপুরে বাসার সামনে ক্রিকেট খেলার সময় বল পাশের বাসার টিনের চালে গিয়ে পড়ে। বল আনতে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে উঠলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় শুভ। পরে ঢামেক হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরও জানান, তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায়। বাবার নাম রেজাউল করিম। বর্তমানে দক্ষিণ কমলাপুরে পরিবারের সঙ্গে থাকতেন। শুভ বিএএফ শাহিন কলেজের একাদশের ছাত্র। ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় অবগত করা হয়েছে।
ট্রেনের ধাক্কায় যুবকের মৃত্যু: রাজধানীর খিলক্ষেত থানাধীন বনরুপা এলাকায় ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাত (২৫) এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। গত শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গতকাল শনিবার ঢাকা বিমানবন্দর রেলস্টেশনের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মো. মহিউদ্দিন জানান, গত শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে খিলক্ষেত বনরুপা রেলগেট সংলগ্ন রেললাইনের পাশ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। তার মাথা থেঁতলানো থেতলানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, ট্রেনের ধাক্কায় তিনি নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম পরিচয় এখনও জানা যায়নি। তার পরনে ছিল প্যান্ট ও খয়েরি রঙের হাফহাতা গেঞ্জি। বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।
ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু: রাজধানীর তেজগাঁও এলাকায় এসির কাজ করার সময় ভবন থেকে পড়ে অনন্ত চন্দ্র মন্ডল (২৫) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। অনন্ত এসি মেরামতের কাজ করতো। ঢাকা ইলেক্ট্রনিক্সের মালিক মিঠু দাসের মাধ্যমে এসির কাজ করতে যায় সে। মিঠু দাস জানান, আজকে অনন্ত তেজগাঁও নিপ্পন বটতলা এলাকায় একটি ভবনের ১২ তলার এসি মেরামতের কাজ করছিল। অসাবধাণতাবশত সে নিচে পড়ে গুরুতর আহত হয়। পরে হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।

Please follow and like us: