যশোরে তরুণ লীগের নেতাকে বোমা মেরে হত্যা

যশোর প্রতিনিধি : যশোরে সরকার সমর্থক সংগঠন তরুণ লীগের এক স্থানীয় নেতাকে বোমা মেরে হত্যা করা হয়েছে। কোতোয়ালি থানার ওসি আজমল হুদা জানান, গত রোববার রাত ১২টার পর শহরের পালবাড়ি ভাস্কর্যের মোড়ে এ হামলার ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একজন। নিহত মনিরুল ইসলাম (৩৮) পুলিশ লাইন টালিখোলা এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে। আর আহত সন্তোষ ঘোষ (৩৬) পুরাতন কসবা ঘোষপাড়া এলাকার নারায়ণ ঘোষের ছেলে। জেলা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক জাহিদ হোসেন মিলন জানান, নিহত মনিরুল জেলা তরুণ লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। আর আহত সন্তোষ যুবলীগ কর্মী। কোতোয়ালির ওসি আজমল হুদা জানান, রাত ১২টার দিকে মনিরুল ও সন্তোষ পালবাড়ি মোড়ে দাঁড়িয়ে কথা বলার সময় সাত থেকে আটজনের একটি দল তাদের দিকে পর পর ছয়টি ককটেল নিক্ষেপ করে। বোমার বিস্ফোরণে মনিরুলের মাথাসহ শরীর ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায়। এরপরও সন্ত্রাসীরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায়। সন্তোষ গুরুতর আহত হন বিস্ফোরণে। হামলাকারীরা চলে গেলে স্থানীয়রা দুইজনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক কল্লোল কুমার সাহা জানান, হাসপাতালে আনার আগেই মনিরুলের মৃত্যু হয়েছে। কল্লোল বলেন, মনিরুলের শরীরে বোমার স্পিøন্টার এবং ধারালো অস্ত্রের আঘাত ছিল। সন্তোষের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। যুবলীগ নেতা জাহিদ হোসেন মিলন বলেন, হতাহত দুজনই জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের অনুসারী। আর হামলাকারী মোস্তফা ওরফে মোস্ত আর তার সহযোগীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের আশ্রিত সন্ত্রাসী। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শামসুদ্দোহা বলেন, কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি আমরা। তবে খুনিদের ধরতে অভিযান শুরু হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে সাংসদ কাজী নাবিলের বক্তব্য জানা যায়নি।

Please follow and like us:
0