মশা করোনা ছড়াচ্ছে কিনা জানালেন বিজ্ঞানীরা

মশা করোনা ছড়াচ্ছে কিনা জানালেন বিজ্ঞানীরা

Last Updated on

প্রত্যাশা ডেস্ক : মানবদেহে নভেল করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট রোগ কোভিড-১৯ ছড়াতে সক্ষম নয় মশা। ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট আইএসএসের বিজ্ঞানীদের নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য মিলেছে বলে ফরাসি বার্তাসংস্থা এএফপি খবর দিয়েছে।
যদিও ইতোমধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, রক্তচোষা এই পতঙ্গের মাধ্যমে করোনাভাইরাস মানবদেহে ছড়াতে পারে এমন কোনো প্রমাণ নেই। তবে মশার কামড়ের মাধ্যমে ডেঙ্গু এবং অন্যান্য রোগ মানবদেহে বিস্তার ঘটতে পারে। প্রাণীস্বাস্থ্য এবং খাদ্য সুরক্ষাবিষয়ক গবেষণা সংস্থা আইজেডএসভিই’র সঙ্গে যৌথভাবে নভেল করোনাভাইরাসের এই গবেষণা করেছেন ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা। গবেষণায় তারা দেখেছেন- এডিশ মশা কিংবা সাধারণ প্রজাতির অন্যান্য মশা সার্স-কোভ-২ ভাইরাসটি ছড়াতে পারে না।
আইএসএসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গবেষণায় দেখা গেছে যে- সংক্রমিত রক্ত মশাকে একবার খাবার হিসেবে দেয়া হয়েছিল, মশা সেটির প্রতিলিপি তৈরি করতে সক্ষম হয়নি। ইতালির এই বিজ্ঞানীরা মশার কামড়ের মাধ্যমে কোভিড-১৯ ছড়ানোর তথ্য পুরোপুরি নাকচ করে দিয়েছেন। সূত্র: এএফপি।

মশা করোনা ছড়াচ্ছে কিনা জানালেন বিজ্ঞানীরা
প্রত্যাশা ডেস্ক : মানবদেহে নভেল করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট রোগ কোভিড-১৯ ছড়াতে সক্ষম নয় মশা। ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট আইএসএসের বিজ্ঞানীদের নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য মিলেছে বলে ফরাসি বার্তাসংস্থা এএফপি খবর দিয়েছে।
যদিও ইতোমধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, রক্তচোষা এই পতঙ্গের মাধ্যমে করোনাভাইরাস মানবদেহে ছড়াতে পারে এমন কোনো প্রমাণ নেই। তবে মশার কামড়ের মাধ্যমে ডেঙ্গু এবং অন্যান্য রোগ মানবদেহে বিস্তার ঘটতে পারে। প্রাণীস্বাস্থ্য এবং খাদ্য সুরক্ষাবিষয়ক গবেষণা সংস্থা আইজেডএসভিই’র সঙ্গে যৌথভাবে নভেল করোনাভাইরাসের এই গবেষণা করেছেন ইতালির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা। গবেষণায় তারা দেখেছেন- এডিশ মশা কিংবা সাধারণ প্রজাতির অন্যান্য মশা সার্স-কোভ-২ ভাইরাসটি ছড়াতে পারে না।
আইএসএসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গবেষণায় দেখা গেছে যে- সংক্রমিত রক্ত মশাকে একবার খাবার হিসেবে দেয়া হয়েছিল, মশা সেটির প্রতিলিপি তৈরি করতে সক্ষম হয়নি। ইতালির এই বিজ্ঞানীরা মশার কামড়ের মাধ্যমে কোভিড-১৯ ছড়ানোর তথ্য পুরোপুরি নাকচ করে দিয়েছেন। সূত্র: এএফপি।

Please follow and like us:
3
20
fb-share-icon20
Live Updates COVID-19 CASES