মমতার পক্ষেই ভোটে লড়বেন চিরঞ্জিত

লড়বেন চিরঞ্জিত

বিনোদন ডেস্ক : কয়েকদিন আগেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একপ্রকার হুমকিমূলক বার্তাই দিয়েছিলেন অভিনেতা চিরঞ্জিত চক্রবর্তী। বলেছিলেন, এ বছরের বিধানসভা নির্বাচনে তাকে নমিনেশন দেওয়া না হলে তিনি তৃণমূল ছেড়ে দেবেন। কিন্তু বর্তমান খবর ভিন্ন। তৃণমূলের হয়েই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করতে চলেছেন এই অভিনেতা।
ভোটে দাঁড়ানোর প্রস্তুতি হিসেবে গত সোমবার করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছেন চিরঞ্জিত। টিকা নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তার গাড়িচালকেও। কারণ, ভোটের প্রচারে তাকেও সঙ্গে যেতে হবে সবসময়। অভিনেতা বলেন, ‘ভেবেছিলাম রাজনীতি ছেড়ে আবার অভিনয়ে পরিপূর্ণ সময় দেব। কিন্তু মমতা দিদি আমাকে যেতে দিলেন না। আমিও ভোটযুদ্ধে যোগ দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হচ্ছি।’
এ বছরের বিধানসভা নির্বাচনের সব থেকে নজরকাড়া বিষয় রাজনৈতিক দলগুলোতে টলিউড তারকাদের যোগদান। ভোট যত এগিয়ে আসছে, ততই তারা বিভিন্ন দলে নাম লেখাচ্ছেন। তারকাদের এমন দলবদলের হিড়িক দেখে চিরঞ্জিত বিস্মিত! তিনি বলেন, ‘বাংলা ছবি এখন আর তেমন চলে না। টাকা এবং গ্ল্যামারে অভ্যস্ত আমার সহকর্মীরা এই পরিস্থিতিতে রাজনীতিতে যোগ দিচ্ছেন।’
গত সোমবার বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। কিছু দিন আগেই গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছেন যশ দাশগুপ্ত, হিরণ চট্টোপাধ্যায়, রুদ্রনীল ঘোষ এবং পায়েল সরকারসহ বেশ কয়েকজন তারকা। চিরঞ্জিতের মতে, ‘প্রার্থী হওয়ার শর্তে রাজনীতিতে যোগ দিচ্ছেন এরা। এখানে রাজনীতির কোনো ভূমিকা নেই। শ্রাবন্তী প্রার্থী হবে বলেই আজ সে বিজেপিতে।’
চিরঞ্জিৎ মনে করেন, ‘২৯৪ টা আসন ভরাতে বিজেপির অনেক পরিচিত মুখের প্রয়োজন। তাই অনেক ছোটখাটো অভিনেতা-অভিনেত্রীদেরও দলে টানা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘কেউ কেউ তো ভাবছেন, বিজেপিতে যোগ দিলে মুম্বাইতে কাজ পাওয়া সহজ হবে।’ অভিনতোর এমন মন্তব্যের কী জবাব দেন বিজেপিতে সদ্য যোগ দেওয়া তারকারা, সেটাই এখন দেখার।

Please follow and like us: