সোম. এপ্রি ৬, ২০২০

ভারত সফরে কী পেলেন ট্রাম্প?

ভারত সফরে কী পেলেন ট্রাম্প?

Last Updated on

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারত সফরে এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সফরে তাকে খুশি করার যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে লাখো মানুষের উপস্থিতিতে স্বাগতম জানানো হয়েছে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প, মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্প ও জামাতা জারেড কুশনারকে।
এমন সময়ে ভারত সফরে এসেছেন ট্রাম্প যখন ভারত অর্থনৈতিক চাপের মুখে রয়েছে। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) নিয়ে বিক্ষোভ চলছে দেশটিতে। কাশ্মীরসহ আরও বেশকিছু ইস্যুতে সমালোচিত হচ্ছেন মোদি।
ওয়াশিংটন ভিত্তিক থিংক ট্যাংক ব্রুকিংস ইন্সটিটিউশনের ভারত বিষয়ের পরিচালক তানভি মাদন বলেছেন, এ সফর মোদীকে রাজনৈতিকভাবে চাঙ্গা করবে। তাকে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তির পাশে দেখা যাবে, যা তার জন্য ভালো সংবাদ তৈরি করবে।
অন্যদিকে, আনুষ্ঠানিকভাবে এটিই প্রথম ভারত সফর ট্রাম্পের। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ঠিক আগে এ সফরের পেছনে অন্যতম কারণ এটি তার রাজনৈতিক ইমেজের জন্য ভালো। যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় ৪৫ লাখ ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক রয়েছেন। এ সফর তাদের সমর্থন অর্জনের একটি সুযোগ।
সাধারণত ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিকরা ডেমোক্র্যাটদের ভোট দেন। ন্যাশনাল এশিয়ান আমেরিকান জরিপ অনুযায়ী, ২০১৬ সালের নির্বাচনে মাত্র ১৬ শতাংশ ভারতীয় ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন।
এছাড়া, এ সফরের মূলকেন্দ্রে রয়েছে সম্ভাব্য একটি বাণিজ্য চুক্তি। গত কয়েক মাস ধরে এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে দু’পক্ষের মধ্যে। তবে এ সফরের আগেই ট্রাম্প বলেছেন, ভারতের সঙ্গে এখনই বড়সড় কোনো চুক্তিতে তিনি যেতে চান না। তারপরও ভারতে মার্কিন বিনিয়োগ বাড়ানো, রফতানি শুল্ক কমানোসহ বাণিজ্য চুক্তির দিকে নজর থাকবে মোদির।
তাছাড়া, চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যিক সম্পর্কের অবনতির সুযোগ নিয়ে ভারত চীনের বিকল্প হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করতে পারে।
দুই দিনের ভারত সফরে এসে ৩০০ কোটি ডলার প্রতিরক্ষা চুক্তিতে সই করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল মঙ্গলবার ভারতের হায়দ্রাবাদ হাউসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে এই চুক্তিতে সই করেন দুই নেতা। বৈঠকের পর ভারত-মার্কিন প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা ক্ষেত্রে দু’দেশের মধ্যে উল্লেখযোগ্য আলোচনা হয়েছে বলে প্রেস বিবৃতিতে জানান দুই রাষ্ট্রপ্রধান।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা, শক্তিক্ষেত্রে কৌশলগত অংশীদারিত্ব, তথ্যপ্রযুক্তি দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক সম্পর্কের মতো সব বিষয়েই আলোচনা হয়েছে।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘এই সফর দু’দেশের কাছেই অত্যন্ত ফলপ্রসূ। আমাদের মধ্যে অ্যাপাশে ও এমএইচ-৬০ হেলিকপ্টার কেনা-বেচার চুক্তি হয়েছে। এই হেলিকপ্টারগুলি বিশ্বের মধ্যে উন্নততম। সন্ত্রাসবাদ রুখতে প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। একই সঙ্গে সন্ত্রাস দমনে পাকিস্তানের সঙ্গেও নিরন্তর আলোচনা চালাচ্ছে আমেরিকা।’

Please follow and like us:
3