বড়বেলার পূজার অনুভূতি ভিন্ন : মিম

বড়বেলার পূজার অনুভূতি ভিন্ন : মিম

বিনোদন প্রতিবেদক : চলছে পূজার উৎসব। দেখতে দেখতেই পূজা প্রায় শেষ হয়ে এলো। আজ মহাঅষ্টমী। ঢাকের তালে, উলুধ্বনিতে মুখর প্রতিটি পূজাম-প। এবারের পূজার পরিকল্পনা সম্পর্কে জানান চিত্রনায়িকা বিদ্যা সিনহা মিম। গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, ‘এবার বাসায় বসে পূজার আনন্দ যতটুকু করা যায় করবো। হয়তো বাসার আশপাশের ম-পে যাবো। কারণ মায়ের মুখ দর্শন তো করতেই হবে।’ প্রতি বছরের মতো আনন্দ আয়োজন এবারের পূজায় নেই। কেন নেই? এই প্রশ্নের উত্তর পৃথিবীর সবাই জানেন। তাই বলে পূজার কেনাকাটাও কি করেননি মিম? প্রশ্ন করতেই একগাল হেসে বললেন, ‘না, করিনি। তবে পরিবারের সবাই কিছু না কিছু কিনেছেন। আর আমি এবার এতো উপহার পেয়েছি যে, চারদিনের পূজায় সেগুলো পরে শেষ করতে পারবো না।’ ‘জামদানি শাড়ি পেয়েছি পাঁচটা। কামিজ পেয়েছি দশটা। মা-বাবাও উপহার দিয়েছেন। সব মিলিয়ে প্রচুর উপহার পেয়েছি!’ বলেন বিদ্যা সিনহা মিম।
ছেলেবেলা এবং বড়বেলার পূজার অনুভূতি ভিন্ন। ছেলেবেলার পূজার স্মৃতিচারণ করে মিম বলেন, ‘আমাদের রাজশাহীতে পূজায় নৌকাবাইচ হয়। সবার কাছেই নৌকাবাইচ খুব উপভোগ্য। নায়িকা হওয়ার পরেও আমি বাইচ দেখতে গিয়েছি দু’বার। সর্বশেষ যেবার গিয়েছিলাম সেবার বড় ধরনের একটা দুর্ঘটনা ঘটেছিল। অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছি! আমি যে নৌকায় উঠেছিলাম সেই নৌকা প্রায় ডুবেই যাচ্ছিল! আমাকে দেখার জন্য এতো মানুষ ভিড় করেছিল যে, সামলানো যাচ্ছিল না। এদিকে নৌকায় পানি উঠছিল দ্রুত, আবার তীরেও আসতে পারছিলাম না। এর মধ্যে আরেকটি নৌকা এসে ধাক্কা দেয় আমাদের নৌকায়। অনেকে লাফিয়ে পড়ে নদীতে। আমার এক কাজিন ঘাড়ে খুব ব্যথা পেয়েছিল। এরপর থেকে আর যাওয়া হয় না।’

Please follow and like us: