মঙ্গল. জুন ১৮, ২০১৯

বিএসএমএমইউ-এর ভেতরে ভাইভা, বাইরে আন্দোলন

বিএসএমএমইউ-এর ভেতরে

Last Updated on

নিজস্ব প্রতিবেদক : চিকিৎসক নিয়োগ পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগে একপক্ষের আন্দোলনের মধ্যেই লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মৌখিক পরীক্ষা নিচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ।
গতকাল সোমবার সকাল পৌনে ৯টা থেকে মৌখিক পরীক্ষা শুরু হয়। সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যেই লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ২০ জন নিয়োগপ্রত্যাশী মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেন।
মৌখিক পরীক্ষা চলাকালেই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করেন নিয়োগবঞ্চিত একটি পক্ষ। গতকাল রবিবারও বিক্ষোভ করার সময় পুলিশ লাঠিচার্জে ছত্রভঙ্গ হয়েছিল তারা। আন্দোলনরতরা ফলাফল বাতিল করে পুনরায় পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানান এবং উপাচার্যের পদত্যাগ ও পুলিশি হামলার প্রতিবাদে মিছিল করেন। কিছুক্ষণ পর পুলিশ আসলে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে ধস্তাধ্বস্তি হয়। এক পর্যায়ে তাদের উপাচার্যের কার্যালয়ে ঢোকার ফটক থেকে তুলে দেয়া হয়। পরে ডেন্টাল বিভাগের সামনে গাছের ছায়ায় অবস্থান নেন আন্দোলনকারীরা। আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, মৌখিক পরীক্ষা চললেও তারা চেয়েছিলেন উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে লিখিত কিছু বক্তব্য তুলে ধরবেন। কিন্তু সেই সুযোগও তারা পাননি।
একজন আন্দোলনকারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘বিএসএমএমইউর ভিসি তার অনিয়ম ঢাকতে, নিয়োগে স্বজনপ্রীতি ঢাকতে এর আগেও আনসার দিয়ে আমাদের ওপর হামলা করেছেন। এবার পুলিশ পাঠিয়েছেন। আমরা কোনোমতেই বিএসএমএমইউ থেকে যাব না। আমরা এখানেই আছি। বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর থেকে বের করে দিলে আমরা রাস্তায় যাব। তবুও দাবি আদায় করে ছাড়ব। জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়াকে সভাপতি ও রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল হান্নানকে সদস্যসচিব করে গঠিত ১০ সদস্যের নিয়োগ কমিটি মৌখিক পরীক্ষা নিচ্ছে। দুপুর ১টা থেকে আরও ১৫ জনের সাক্ষাৎকার নেয়া হবে। আগামী ৮ জুলাই পর্যন্ত সাক্ষাৎকার চলবে।
সরেজমিন দেখা গেছে, ভিসির ভবনের সামনে আনসার বাহিনীর একাধিক সদস্য প্রবেশমুখে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এ প্রবেশপথে রোগী ও তাদের স্বজনকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। ডাক্তার বা অন্য কারও পরিচয় নিশ্চিত হয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া নিচতলায়ে পুলিশের ৩০ জনের মত পুলিশ সদস্য অবস্থান করছেন। দোতলাতেও উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে পুলিশি পাহারা দেখা গেছে। এদিকে উপাচার্যের ভবনের সিঁড়ি, বিভিন্ন জায়গার দেয়ালে ভিসির পদত্যাগ, নিয়োগে দুর্নীতির কথা তুলে ধরে নানা ¯ে¬াগান বড় বড় করে লেখা চোখে পড়েছে। এতে লেখা রয়েছে, জনপ্রতি বিশ লাখম আর কত দুর্নীতি এমন সব ¯ে¬াগান। আন্দোলনকারীরা বলছেন, ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তারা নিয়োগ পরীক্ষার ফলাফল বাতিল করে নতুন করে পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানাবে। তা না হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে তারা দাবি তুলে ধরার চেষ্টা করবেন।

Please follow and like us:
2