মঙ্গল. জুন ২৫, ২০১৯

বন্ধ হচ্ছে পোল্ট্রি খামার

বন্ধ হচ্ছে পোল্ট্রি খামার

Last Updated on

দিনাজপুর প্রতিনিধি : আত্মকর্মসংস্থানের পথ খুঁজে নিয়ে দিনাজপুরে অনেক বেকার যুবক পোল্ট্রি খামার করে এখন বিপাকে পড়েছেন। একদিকে বাচ্চা (এক দিনের) ও খাবারের দাম দফায় দফায় বেড়ে যাওয়ায় আর অন্যদিকে উৎপাদিত মুরগি এবং ডিমের ভালো দাম না পাওয়ায় বন্ধ হয়ে গেছে অসংখ্য পোল্ট্রি খামার। জেলায় পোল্ট্রি খামারের সংখ্যা ছিল প্রায় সাড়ে চার হাজার, যার মধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে আড়াই হাজারটি। এসব খামারি পুঁজি হারিয়ে লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে খামার বন্ধ করে দেওয়ায় তাদের সঙ্গে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন আড়াই হাজার শ্রমিকও। ব্যাংক বা এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ করতে না পেরে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তাদের অনেকে। ফলে লোকসান ও ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে হতাশায় দিন কাটাচ্ছেন খামারিরা, মানবেতর জীবনযাপন করছেন শ্রমিকরাও। বিরল উপজেলার রানীপুকুরের পোল্ট্রিখামারি ফারুক জানান, খামার করতে গিয়ে তার সাত লাখ টাকা লোকসান হয়েছে। তিন লাখ টাকা ব্যাংকঋণ নিয়ে এখন মহাবিপদে পড়তে হয়েছে। জমি বিক্রি করে পরিশোধ করতে হচ্ছে ঋণের টাকা। এ অবস্থা চলতে থাকলে এ অঞ্চলের পোল্ট্রি শিল্প ধ্বংস হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। পোল্ট্রি খাবার ও বাচ্চার মূল্যবৃদ্ধির পাশাপাশি উৎপাদিত মুরগি ও ডিমের ভালো দাম না পাওয়ায় পোল্ট্রি শিল্পে ধস নামার কথা স্বীকার করেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. শাহিনুর আলম। তবে এ বিষয়ে খামারিদের তারা পরামর্শ ও সহায়তা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

Please follow and like us:
0