পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও দক্ষিণ আফ্রিকায় ফিরছে না ক্রিকেট

ক্রীড়া ডেস্ক : করোনা ভীত কাটিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় সবকিছুই প্রায় স্বাভাবিক হতে চলেছে। তবে নিকট ভবিষ্যতে দেশটির আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার কোনো সম্ভাবনা নেই। যদিও মহামারির ফাঁড়া কাটিয়ে যে কয়টি দেশ প্রথম দিকে অনুশীলন শুরু করেছিল, তাদের মধ্যে ছিল প্রোটিয়ারাও। ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দক্ষিণ আফ্রিকায় বিমান চলাচল কার্যত বন্ধ ছিল। তবে ১ অক্টোবর থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলো ফের উঠা-নামা শুরু করবে সীমিত আকারে। আফ্রিকার দেশগুলোর সাথে দক্ষিণ আফ্রিকার যাতায়াত ব্যবস্থা হবে স্বাভাবিকের মতোই। তবে আন্তর্জাকিব কোনো খেলাধুলা আয়োজনের অনুমতি এখনো দেয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার সরকার।
শুধু তাই নয়। ব্যবসা বা ভ্রমণের জন্য কেউ দক্ষিণ আফ্রিকা যেতে পারবেন। তবে এমন শিথিলতার মাঝেও বাধা থাকছে আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ইভেন্টে অংশগ্রহণে। কারণ আফ্রিকার মধ্যেও ভ্রমণ বা ব্যবসার কাজ ব্যতীত অন্য কোনো কারণেই দেশ ত্যাগ করা যাবে না। প্রোটিয়ারাও তাই নিজেদের দেশে আন্তর্জাতিক সিরিজ আয়োজনের লক্ষ্য থেকে সরে এসেছে। ভাইরাস সংক্রমণের গতি ও ক্রিকেটীয় প্রেক্ষাপট মিলিয়ে অনেকটাই বাংলাদেশের মতো পরিস্থিতিতে দক্ষিণ আফ্রিকা। দেশটিতে তাই ঘরোয়া ক্রিকেট আয়োজনের পরিকল্পনা চলছে।
তবে বিপত্তি আছে সেখানেও। এমজানসি ক্রিকেট লিগের তৃতীয় আসর দর্শকশূন্য মাঠে আয়োজন করাই হবে বড় চ্যালেঞ্জ। তাছাড়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সূচি পুনর্বিন্যাস করা না গেলে ঘরোয়া কোন আসর দিয়ে ক্রিকেটে ফিরবে প্রোটিয়ারা, তাও বড় সংশয়। কারণ দক্ষিণ আফ্রিকার পরবর্তী আন্তর্জাতিক সিরিজের ফরম্যাট অনুযায়ীই ঘরোয়া টুর্নামেন্ট মাঠে গড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সব মিলিয়ে অনিশ্চয়তায় কাটছে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটের সময়টা। সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে বোর্ড নিয়ন্ত্রণ হারানোর পর জেগেছে নিষেধাজ্ঞার শঙ্কাও। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ক্ষেত্রে জটিলতা সংকটময় পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলেছে।

Please follow and like us: