পরিচালক আমাকে নর্তকী বানিয়েছে : অদিতি রাও

বানিয়েছে : অদিতি রাও

বিনোদন ডেস্ক : বলিউডে প্রথম ছবি থেকেই সবার নজর কেড়েছেন অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি। ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ ছবিতে নিজের চরিত্র নুসরাতকে ‘নিখুঁত রোদের মেয়ে’ বলে আখ্যায়িত করেছেন তিনি। ২০১৬ সালে পলা হকিন্সের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত একই নামের মূল ছবির হিন্দি রিমেক অদিতির ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’। মূল ছবিতে মনস্তাত্ত্বিক থ্রিলার হ্যালি বেনেট মেগান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন এমিলি ব্লান্ট। রিবু দাশগুপ্তের পরিচালনায় এই ছবির বলিউড সংস্করণে অদিতির পাশাপাশি মীরা চরিত্রে পর্দায় হাজির হবেন পরিণীতি চোপড়া। মূল ছবিতে মেগান একটি রহস্যময়, আবেগগতভাবে বিরক্ত মেয়ে। বলিউড সংস্করণে নুসরাত তার থেকে কতটা আলাদা? নির্মাতা রিবু তার ছবিতে নুসরাতকে কেমন রূপে হাজির করবেন?
এ প্রসঙ্গে একটি সংবাদমাধ্যমকে অদিতি বলেন, নুসরাত চরিত্রটির পেছনের গল্পে অনেককিছু এনেছিলেন পরিচালক রিবু। দুটি বিপরীত চরিত্রকে (নুসরাত ও মীরা) তিনি যেভাবে উপস্থাপন করেছেন তা সত্যিই অসাধারণ। তিনি আরো জানিয়েছেন, নুসরাত চরিত্রে নতুন সংযোজন তাকে বিশেষ করে তুলেছে। পরিচালক আমাকে নর্তকী বানিয়েছে। যেখানে সুখ-দুঃখ যাই হোক না কেন, তার নাচের মাধ্যমেই সেটি প্রকাশ পায়। নাচ একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। সংগীত এবং নৃত্য, এই সূক্ষ্ম জিনিসগুলো একজন ব্যক্তির পক্ষে কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি কিভাবে কোন ব্যক্তির মধ্যে বিশেষ কিছু নিয়ে আসে তা আমি জানি, যোগ করেন অদিতি। মূল গল্প অনুসারে, ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ ছবির প্রতিটি চরিত্র স্তরযুক্ত। নুসরাত ও মীরা উভয় চরিত্রের অন্ধকার দিকগুলো প্রকাশ করে নির্মাতা যেভাবে গল্প বলেছেন তার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন অদিতি।

Please follow and like us: