নির্বাচনের সময় ও পরে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহ্বান ১৪ দলের

নির্বাচনের সময় ও পরে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহ্বান ১৪ দলের

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, যখনই দেশে নির্বাচন আসে, তখনই একটি অপশক্তি সংখ্যালঘুদের ভয়ভীতি এবং আঘাতের চেষ্টা করে। তাই নির্বাচনের সময় ও পরে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।
গতকাল মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন ও হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি এ কথা বলেন। নাসিম বলেন, নির্বাচন যেহেতু শুরু হয়ে গেছে, তাই এখন থেকে সেসব এলাকায় নিরাপত্তা দিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে বলা হয়েছে। নির্বাচনের সময় ও পরে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এ ব্যাপারে কোনো গাফিলতি সহ্য করা হবে না। বৈঠক সম্পর্কে নাসিম বলেন, ‘১৪ দল, উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা এবং হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির বিজয় নিশ্চিতে মাঠে থাকবে।’
১৪ দলের ঘোষণা অনুযায়ী ১৪ ডিসেম্বর বা তার আগেই বিজয় মঞ্চের কাজ শুরু হবে। সবাই মিলে সম্মিলিতভাবে দেশের সব জেলা, উপজেলায় বিজয় মঞ্চ স্থাপন করা হবে। তিনি বলেন, ‘বিজয় মঞ্চে বিজয়ের গান, বঙ্গবন্ধুর কথা, স্বাধীনতার ইতিহাসের কথা হবে এবং আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার বিজয়ের জন্য দলের লড়াই, সংগ্রামের কথা বলা হবে।’
নাসিম বলেন, ‘১৪ দলের একটি নির্বাচনী প্রচার কমিটি হয়েছে। এ কমিটির সঙ্গে সংগতি রেখে মুক্তিযোদ্ধা ও অন্যান্য সংগঠনের সঙ্গে সংহতি রেখে একটি কমিটি করা হবে। এ কমিটি প্রয়োজনে প্রতিটি জেলা, উপজেলায় কাজ করবে।’
এক প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, ‘যারা বঙ্গবন্ধুর কথা বলেন, মুজিব কোট এখনো পরে থাকেন আবার বঙ্গবন্ধুর খুনি-পৃষ্ঠপোষকদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। তাদের বিচার জনগণ ৩০ ডিসেম্বর দিয়ে দেবে। এ ‘বর্ণচোরা’, ‘ভণ্ডদের’ বিরুদ্ধে ভোট দিয়ে জনগণ প্রমাণ করে দেবে তাদের সঙ্গে জনগণ নেই।’
তিনি বলেন, ‘এটি দুর্ভাগ্যের ব্যাপার না। জাতির দুর্ভাগ্য। যারা বিপক্ষে যোগ দিয়েছেন, তাদেরই দুর্ভাগ্য। আওয়ামী লীগের দুর্ভাগ্য নয়।’
সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, ‘আগামী নির্বাচন উপলক্ষে ১৪ দলীয় জোট একটি পোস্টার তৈরি করবে। যেখানে রাজাকার, আলবদরদের ভোট না দেয়ার আহ্বান জানানো হবে। এ ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে ভোট দিতে আহ্বান জানানো হবে। পাশাপাশি ‘তরুণের প্রথম ভোট, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে হোক’ এ জাতীয় কথাও পোস্টারে থাকবে।’
সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠনের পক্ষে নৌমন্ত্রী শাজাহান খান, সেক্টর কমান্ডার ফোরামের কে এম সফিউল্লাহ, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নির্বাহী সভাপতি শাহরিয়ার কবির, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রমুখ।

Please follow and like us:
0