মঙ্গল. মে ২১, ২০১৯

ডাকসু ভোটের ফল অস্বাভাবিক ও অসামঞ্জস্যতাপূর্ণ: বিএনপি

ডাকসু ভোটের ফল অস্বাভাবিক ও অসামঞ্জস্যতাপূর্ণ: বিএনপি

Last Updated on

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের ফলাফলকে অস্বাভাবিক আখ্যা দিয়ে এর পেছনে ক্ষমতাসীনদের ‘কারিগরি’ থাকতে পারে বলে ধারণা বিএনপির। নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, এই ফলাফল অস্বাভাবিক ও অনেক অসামঞ্জস্য। ছাত্র সংগঠনের যে নির্বাচনগুলো হয়, তাদের ভিপি থেকে সদস্য পর্যন্ত একটা ফিক্সড প্যানেল ভোট থাকে। এই প্যানেল ভোটটা সবাই পায়। কিন্তু দেখা যাচ্ছে যে, ছাত্রলীগের ভিপি-জিএস এবং কোটা সংস্কার আন্দোলনের ভিপি-জিএসের মধ্যে প্যানেল ভোটের অনেক পার্থক্য। রিজভী বলেন, সবমিলিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কোনো কারিগরি হয়েছে কিনা বা সেই কারিগরির কোনো ব্লু প্রিন্ট ফুলার রোডে ভাইস চ্যান্সলরের বাসভবনে হয়েছে কিনা এটা বলা যাবে দুই-একদিন পর। আগে সব ফলাফল নিয়ে বিশ্লেষন করি দেখি। তবে এখন পর্যন্ত মনে হয়েছে এটা অস্বাভাবিকই বটে। অনিয়মের অভিযোগের পর অধিকাংশ প্যানেলের প্রার্থীদের বর্জনের মধ্যে গত সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ- ডাকসু নির্বাচনে ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক ছাড়া সব পদে জয়ী হয়েছেন ছাত্রলীগের প্রার্থীরা। ভিপি নির্বাচিত হয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরু। ভিপি পদে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে দিকে বাম জোট, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের দুই জোটসহ ভোট বর্জনকারী প্যানেলগুলোর ডাকে ক্লাস বর্জন কর্মসূচি চলে। রুহুল কবির রিজভী বলেন, গতকাল (গত সোমবার) ডাকসুর ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা ঘটল। মিডনাইট ভোটের সরকারের ফতোয়া শুনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ‘ভূতের বেগার’ খেটে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুমহান ঐতিহ্যকে ধুলোয় লুটিয়ে দিলেন। সরকার যেহেতু বিরোধীদের এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তে নারাজ, তাই আজ্ঞাবাহী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ডাকসু নির্বাচন করলেন প্রহসন ও সন্ত্রাসী বার্তাবরণে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার-সিইসির অতৃপ্ত আত্মাকে নিজের দেহে ধারণ করলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি। সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য সাহিদা রফিক, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, আবদুল আউয়াল খান, শামসুজ্জামান সুরুজ, কাজী রফিক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us:
0