জাতিসংঘকে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন সরবরাহের প্রস্তাব পুতিনের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জাতিসংঘ কর্মীদের জন্য বিনামূল্যে রাশিয়ার উদ্ভাবিত স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিন সরবরাহের প্রস্তাব দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল অধিবেশনে তিনি বলেছেন, ‘আমরা অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করে নিতে প্রস্তুত এবং সব দেশের প্রতি সহযোগিতা অব্যাহত রাখতে চাই। এর মধ্যে রাশিয়ার ভ্যাকসিনও রয়েছে।
গত আগস্ট মাসে রাশিয়া তাদের প্রথম করোনা টিকার অনুমোদন দেয়। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সব ধাপ অতিক্রম করার আগেই অনুমোদন দেওয়ায় ভ্যাকসিনটি নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে উদ্বেগ রয়েছে। নিউ ইয়র্ক পোস্টের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, স্পুটনিক-ভি নিয়ে সন্দেহ থাকলেও পুতিন এই টিকা অন্য দেশগুলোকে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ‘রাশিয়া জাতিসংঘকে প্রয়োজনীয় সব সহায়তা প্রদানের জন্য প্রস্তুত। বিশেষ করে জাতিসংঘ ও তার অফিসের কর্মীদের জন্য আমাদের ভ্যাকসিন বিনা মূল্যে সরবরাহ করার প্রস্তাব দিচ্ছি।’
টিকা অনুমোদনের সময় পুতিন বলেছিলেন, টিকার কার্যকারিতা ও স্থায়ী প্রতিরোধ সুরক্ষার বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে। তার এক কন্যাও টিকাটি নিয়েছেন। তবে এ মাসের শুরুতে আন্তর্জাতিক গবেষকেদের একটি দল স্পুটনিক-ভি টিকার উদ্ভাবনকারীদের কাছে একটি খোলা চিঠিতে টিকা গবেষণার তথ্য স্পষ্ট করতে বলেছেন। রাশিয়ার গবেষকেরাও তথ্যের সীমাবদ্ধতার কথা স্বীকার করেছেন।
ল্যানসেট সাময়িকীতে প্রকাশিত নিবন্ধে দাবি করা হয়, টিকার দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষায় ৪০ জন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর প্রয়োগে অ্যান্টিবডি তৈরি হতে দেখা গেছে। তাঁদের ৪২ দিন পর্যবেক্ষণ করা হয়। তবে নমুনা অল্পসংখ্যক মানুষের ওপর প্রয়োগ করা হয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ অ্যান্থনি ফাউসি রাশিয়ার টিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে বলেন, টিকার কার্যকারিতা ও নিরাপত্তা নিয়ে মারাত্মক সন্দেহ রয়েছে। তবে পুতিন গতকাল মঙ্গলবার বলেছেন, ‘জাতিসংঘের কিছু সহকর্মী এ বিষয়ে সাহায্য চেয়েছেন। তাদেরকে দূরে ঠেলে দিতে পারি না।’
জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন ডুজারিক বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট পুতিনকে তার উদার প্রস্তাবের জন্য ধন্যবাদ জানাই। আমাদের চিকিৎসা পরিষেবাগুলোর মাধ্যমে বিষয়টি গবেষণা করা হবে।’ এ প্রসঙ্গে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। গত সোমবার অবশ্য রাশিয়ার গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপ অঞ্চলের পরিচালক হ্যান্স ক্লুগ টিকাটির প্রশংসা করেছেন। তিনি রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাস্কোর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

Please follow and like us: