মঙ্গল. অক্টো ১৫, ২০১৯

চন্দ্রায়ন-টু নিয়ে আর কিছু করবে না নাসা

চন্দ্রায়ন-টু নিয়ে আর কিছু করবে না নাসা

Last Updated on

প্রত্যাশা ডেস্ক : চন্দ্রায়ন-টু এর বিচ্ছিন্ন ল্যাণ্ডার বিক্রমের খোঁজে আর কিছু করবে না মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। বিক্রমের খোঁজে সম্ভব সবকিছু করেছে নাসা কিন্তু আর কিছু তারা করবে না।
ভারতের একটি টিভিতে দেয়া সাক্ষাৎকারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কমার্স সেক্রেটারি উইলবার রস বলেন, চন্দ্রায়ন-টু এর ল্যাণ্ডার বিক্রমের সফট ল্যাণ্ডিং কেন হয়নি বা কি কারণে এই প্রজেক্ট সফল হল না, তা খোঁজার চেষ্টা করেছে নাসা। কিন্তু এই প্রজেক্টের যাবতীয় গোপন তথ্য ইসরোর হাতে। ফলে চাইলেও এর থেকে বেশি কিছু করতে পারছে না নাসা। তবে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা চেষ্টা করেছিল ইসরোকে সাহায্য করার।
গত শুক্রবার ইসরোর প্রধান কে শিবনের সঙ্গে সাক্ষাত করেন উইলবার রস। ৭ই সেপ্টেম্বর ইসরো ল্যাণ্ডার বিক্রমের সঙ্গে যাবতীয় যোগাযোগ হারিয়ে ফেলে। চেষ্টা করেও বিক্রমের সঙ্গে আর যোগসূত্র স্থাপন করতে পারেনি ইসরো। পরে সাহায্য চায় নাসার কাছ থেকে। নাসা জানায় ১৪ দিনের জন্য ঘন কালো অন্ধকারে ঢেকে থাকবে চাঁদের দক্ষিণ মেরু, যা লুনার নাইটস নামেই পরিচিত৷ তখন সেখানে তাপমাত্রা থাকে মাইনাস ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ বিক্রমের সোলার প্যানেলও কাজ করবে না এই তাপমাত্রায়৷ ফলে কার্যক্ষমতা হারাবে বিক্রম৷ ফের ১৪ই অক্টোবর চাঁদের ওই পৃষ্ঠের ওপর দিয়ে উড়বে নাসার লুনার রিকনাসান্স অরবিটার৷ তখন শেষ হবে লুনার নাইটসও৷ শেষ চেষ্টা তখনই করা হবে, যাতে বিক্রম ল্যাণ্ডারের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়৷ নাসার লুনার রিকনাসান্স অরবিটার বা এলআরও এর আগে দুটি সম্ভাব্য ছবি পাঠায়৷ তবে সেখান থেকে বিক্রমের অবস্থান স্পষ্ট হয়নি৷ এরপর চাঁদের ওই পৃষ্ঠে শুরু হয়ে যায় লুনার নাইটস৷ ফলে অন্ধকারাচ্ছন্ন এলাকায় বিক্রমকে খুঁজে পাওয়া আরও কষ্টকর হয়ে পড়ে৷ নাসার এলআরও টিম জানিয়েছিল, আগের ছবিগুলির সঙ্গে নতুন ছবিগুলির তুলনা করে দেখা হলেও বিশেষ লাভ হয়নি৷

Please follow and like us:
2