শনি. সেপ্টে ২১, ২০১৯

‘গুমনামী’র পরিচালক সৃজিত মুখার্জিকে লিগ্যাল নোটিস

‘গুমনামী’র পরিচালক সৃজিত মুখার্জিকে লিগ্যাল নোটিস

Last Updated on

বিনোদন ডেস্ক : নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জীবন ও মৃত্যুর রহস্যঘেরা কাহিনী নিয়ে নির্মিত সিনেমা ‘গুমনামী’র টিজার প্রকাশ পেয়েছে বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট)। অনেকের প্রশংসা পেলেও টিজার দেখে চটেছেন খোদ বসু পরিবারের সদস্যরা। টিজার মুক্তির পরদিনই লিগ্যাল নোটিস পৌঁছে গেছে পরিচালক সৃজিত মুখার্জির দরজায়। ভারতের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত সিনেমা নির্মাতা সৃজিত মুখার্জির সর্বশেষ সিনেমা ‘গুমনামী’ মুক্তি পাবে আসছে দুর্গা পূজায়। কিন্তু সিনেমাটির টিজার প্রকাশের পরদিনেই পরিচালককে দেওয়া হয়েছে লিগ্যাল নোটিস। নোটিসে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে ‘গুমনামী বাবা’ চরিত্রে রূপায়ণ করতে নিষেধ করেছেন নোটিসদাতা। ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের অন্যতম নেতা ও আজাদ হিন্দ ফৌজের সর্বাধিনায়ক ছিলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। টিজার অনুযায়ী নেতাজির মৃত্যু সম্পর্কে বিভিন্ন জল্পনা-লোককথাকে তুলে ধরা হয়েছে ‘গুমনামী’তে। ১৯৭০’র দশকে উত্তর প্রদেশে এক সাধুবাবার আবির্ভাব হয়েছিল। তার নাম ‘গুমনামী বাবা’। অনেকেই বিশ্বাস করেন প্রকৃতপক্ষে তিনি ছিলেন ছদ্মবেশী সুভাষচন্দ্র বসু। এই কিংবদন্তির আলোকেই নির্মিত হয়েছে সৃজিতের সিনেমা। এতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন গুণী অভিনেতা প্রসেনজিৎ চ্যাটার্জি। বসু পরিবারের সদস্যরা আগেই জানিয়েছিলেন, কোনোপ্রকার তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই গুমনামী বাবাকে ছদ্মবেশী নেতাজি হিসেবে অভিহিত করা একটি ফৌজদারি অপরাধ। টিজার প্রকাশের পর এখন তারা সত্যিই আইনের আশ্রয় নিচ্ছেন। অঞ্জু ধর ও চন্দ্রচূড় ঘোষের লেখা ‘কোনানড্রাম’ বই থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে সৃজিত ‘গুমনামী’ নির্মাণ করেছেন। এতে প্রসেনজিৎসহ আরও অভিনয় করেছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য ও তনুশ্রী চক্রবর্তী।

Please follow and like us:
2