গাবতলী, কমলাপুর ও সদঘাটে মানুষের ঢল

নিজস্ব প্রতিবেদক : বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের ফলে বৃষ্টি মাথায় নিয়েই শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথ হয়ে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছেন দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীরা। গতকাল বুধবার পবিত্র শবেকদরের সরকারি ছুটি থাকায় সন্ধ্যা থেকেই নাড়ির টানে পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে ঈদুল ফিতর উদযাপন করতে ছুটছেন সবাই।
এদিকে আপনজনদের সঙ্গে ঈদ করতে যাওয়া মানুষের ভিড় ক্রমেই বাড়ছে রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালে। গতকাল বুধবার সকাল থেকেই ঘরে ফেরা মানুষের জনস্রোতে পরিণত হয়েছে গাবতলী বাস টার্মিনালে। দূরপাল্লার বাসগুলো আসন পূর্ণ করে ঢাকা ছাড়ে। এ ছাড়া ঢাকার আশপাশের জেলাতে যাওয়ার বাসগুলোতেও ছিল যাত্রীদের চাপ। সব মিলে ঘরে ফেরা মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। গাবতলীতে দেখা গেছে, নানা ধরনের ভোগান্তি উপেক্ষা করেই সবার অপেক্ষা তাদের কাঙ্ক্ষিত বাসের জন্য। নাড়ির টানে দূর-দূরান্তে ছুটে চলেছেন তারা। এসব যাত্রীদের অধিকাংশই চাকরিজীবী ও শিক্ষার্থী। সময়ের হেরফের হলেও বিভিন্ন পরিবহন কোম্পানির দূরপাল্লার বাসগুলো যাত্রী বোঝাই করে ছাড়ছে টার্মিনাল।
গাবতলীর সাকুরা পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার মাইনুল ইসলাম জানান, গতকাল বিকেল থেকেই মূলত যাত্রীদের চাপ বাড়তে শুরু হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে সেই চাপ আরো বেড়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সমস্ত অফিস গার্মেন্টস বন্ধ হয়ে যাবে তাই আজ আরো চাপ বাড়বে।
কমলাপুরে ঘরমুখী মানুষের ঢল, দেরিতে ছেড়েছে ১২ ট্রেন : ট্রেনে ঈদযাত্রার চতুর্থ দিনে গতকাল বুধবার সকাল থেকেই কমলাপুর রেলস্টেশনে ঘরমুখী যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে। তবে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ১২টি ট্রেন দেরিতে স্টেশন ছেড়েছে। যাত্রীদের মধ্যে এ নিয়ে দেখা যায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া।
গত দুই দিনের তুলনায় বুধবার ভোর থেকেই স্টেশনে মানুষের ভিড় বেশি ছিল। সড়কপথে যানজটের ঝক্কি এড়াতে অনেকে বিকল্প হিসেবে রেলপথে ভ্রমণ করছেন। গত তিন দিন বেশির ভাগ ট্রেন নির্ধারিত সময়ে প্ল্যাটফর্ম ছেড়েছিল। তবে আজ নির্ধারিত সময়ের চেয়ে কয়েকটি ট্রেন দেরিতে যাওয়ায় যাত্রীরা কিছুটা অসন্তোষ প্রকাশ করেন।
ঘরমুখো মানুষের ভিড় সদরঘাটে : রাজধানীর সদরঘাটের আগে রায় সাহেব বাজার থেকেই চোখে পড়ছে ঈদে ঘরমুখো মানুষের ভিড়। নাড়ির টানে হাতে ও কাঁধে একাধিক ব্যাগ, কারো মাথায় বস্তা, মালামাল নিয়ে স্ত্রী-সন্তানসহ চলছেন সদরঘাটের উদ্দেশ্যে। কারণ তারা এ নগরের অস্থায়ী বাসিন্দা। আগামী ১৬ বা ১৭ জুন দেশে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর পালিত হবে। ঈদে ঘরমুখো মানুষ গতকাল বুধবার সকাল থেকেই সদরঘাট আসতে শুরু করেন। দুপুরের মধ্যে বেশির ভাগ লঞ্চ যাত্রীতে পূর্ণ হয়ে যায়। এজন্য কয়েকটি লঞ্চ সকালে সদরঘাট ছেড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন সদরঘাটে দায়িত্ব পালনকারী বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কর্মকর্তারা। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বাড়ি ফিরতে সদরঘাটে সবচেয়ে বেশি লোক হবে আজ বৃহস্পতিবার। শুক্রবার আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।

Please follow and like us:
0