গণতন্ত্র নেই, চলছে ‘শেখ হাসিনাতন্ত্র’: গয়েশ্বর

গণতন্ত্র নেই, চলছে ‘শেখ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাংলাদেশে এখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একক কর্তৃত্ব চলছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেছেন, “আজকে কোর্ট-কাচারি-উচ্চ আদালত থেকে আরম্ভ করে প্রত্যেকটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান এক ব্যক্তির নিয়ন্ত্রণে, এক ব্যক্তির কথায় চলে।
“আজকে দেশে গণতন্ত্র নাই, আছে হাসিনার শাসনতন্ত্র। হাসিনা মানে সংবিধান। দুইটি কথা সব কিছুতে- আমি আর সব কিছু আমার। আমার বা আমারবাদ।”
গতকাল শনিবার সকালে নয়া পল্টনের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য। গয়েশ্বর বলেন, “গণতন্ত্রে কিন্তু কখনও আমার শব্দটি গ্রহণযোগ্য না। গণতন্ত্র মানে আমরা, গণতন্ত্র মানে আমাদের, গণতন্ত্র মানে বহুজন, গণতন্ত্র মানে বহুমত। গণতন্ত্র মানে এক জনে মত নয়, গণতন্ত্র মানে একজন নয়।
“সুতরাং এই যে কর্তৃত্ববাদী ব্যবস্থা, এটা স্বৈরতন্ত্রকেও ছাড়িয়ে গেছে। এক ব্যক্তির শাসনে দেশটা ধ্বংসসতূপে পরিণত হচ্ছে।” এই অবস্থা বদলাতে বিএনপির নেতা-কর্মীদের আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বান জানিয়ে গয়েশ্বর বলেন, “রাজপথ দখল করতে হবে। স্বৈরাচারকে বিতাড়িত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।” তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের উদ্যোগে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি উপলক্ষে এই অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। গয়েশ্বর বলেন, “শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের শিকার হয়ে আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান রহমান আজকে লন্ডনে বসে আছেন চিকিৎসার জন্য আমাদের এই নেতাকে আগামী দিনে দেশপ্রেমিক জাতীয়তাবাদী শক্তির অবশিষ্ট নেতা বলা যায়। অর্থাৎ এটি আমাদের একটি মাত্র ঠিকানা। “এই ঠিকানাকে আমাদের বাঁচিয়ে রাখতে হবে এবং আমাদের সবাইকে আন্তরিকভাবে কথা ও কাজের মধ্যে সঙ্গতি েের্খই জনগণের প্রত্যাশা ও জনগণের উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টিতে আপনাদেরকে একেকবার একেকজনকে একেকটা উদাহরণ সৃষ্টি করতে হবে।”
ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বিএনপির এই নেতা বলেন, “আজকে স্বেচ্ছায় রক্তদান, এই রক্ত কারা পাবে? শ্রমজীবীরা পাবে, সাধারণ রোগীরা পাবে। “পাশাপাশি আপনারা রাজপথে স্বেচ্ছায় রক্ত ঝরিয়ে আরেকটি একাত্তর সৃষ্টি করবেন, বাংলাদেশকে মুক্ত করবেন, গণতন্ত্র মুক্ত করবেন, এটা আমরা আশা করি।” রক্তদান কর্মসূচি উদ্বোধন করেন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল।
সংগঠনের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকনের সভাপতিত্বে ও জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে ছাত্রদলের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, সহসভাপতি মুক্তাদির হোসেন তরু, কেন্দ্রীয় নেতা তবিবুর রহমান সাগর, মিজানুর রহমান রিপন, তৌহিদুর রহমান আউয়াল, নাবিদ রহমান বক্তব্য রাখেন।

Please follow and like us: