কাপড়ের বস্তায় এক লাখ ইয়াবা

কক্সবাজার প্রতিনিধি : মিয়ানমার থেকে নাফ নদী দিয়ে কক্সবাজারের টেকনাফে পাচারের সময় এক লাখ ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। গত রোববার দিনগত রাতে উপজেলার হোয়াইক্যং লম্বাবিল এলাকার নাফ নদী থেকে ইয়াবা বড়িগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ ২ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার।
তিনি বলেন, নাফ নদী দিয়ে ইয়াবার একটি চালান মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আনা হবে বলে তথ্য পায় বিজিবি। এরই সূত্র ধরে হোয়াইক্যং সীমান্তচৌকির সুবেদার মো. আবদুল জলিলের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টহল দল ওই এলাকায় অভিযানে যায়। পরে তিনজন লোককে নৌকায় বাংলাদেশের অভ্যন্তরে আসতে দেখে অপেক্ষা করতে থাকেন। নৌকাটি নাফ নদী জলসীমানা অতিক্রম করে তীরের কাছাকাছি এলে বিজিবির টহল দল তাদের চ্যালেঞ্জ করে। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে চোরাকারবারিরা নৌকাসহ পালানোর চেষ্টা করলে বিজিবির টহলদল স্পিডবোটে তাদের ধাওয়া করে। একপর্যায়ে চোরাকারবারিরা নৌকাটি ফুটো করে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে সাঁতরে মিয়ানমারের জলসীমানায় চলে যায়। পরে টহল দল নদীতে ভেসে যাওয়া কাপড়ের ২৪টি বস্তা উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। ওই কাপড়ের বস্তার ভেতর থেকে তিন কোটি টাকার এক লাখ ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় ওই নৌকা থেকে ১ হাজার ১৬৩টি স্কার্ট, লুঙ্গি ৮৫৪টি, থামি ১ হাজার ৫১৪টি, ছেলেদের গেঞ্জি ২৬০টি, ওড়না ৯৮টি, শিশুদের জামা ৫৮টি, থানকাপড় ৩০০ গজসহ বিভিন্ন ধরনের মালামাল উদ্ধার করে বিজিবি। উদ্ধার করা ইয়াবা বড়িগুলো বিজিবির ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরে এবং অন্যান্য মালামাল টেকনাফ শুল্ক বিভাগে জমা দেওয়া হয়েছে।

Please follow and like us:
0