সোম. এপ্রি ৬, ২০২০

করোনার গতি কমতে গ্রীষ্মরে দকিে তাকয়িে বজ্ঞিানীরা

Last Updated on

আর্ন্তজাতকি ডস্কে
সারাবশ্বিে দাপট দখেয়িে বড়োচ্ছে করোনাভাইরাস। এই প্রাণঘাতী ভাইরাসরে কারণে হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারয়িছে।ে র্বতমানে বশ্বিরে বভিন্নি দশেে নানা ধরনরে সঙ্কটরে জন্য দায়ী এই ভাইরাস। তবে এর মধ্যওে আশার আলো দখেছনে বজ্ঞিানীরা। শীত শষে হয়ে গ্রীষ্মরে আগমন ঘটছ।ে গ্রীষ্মে করোনার প্রকোপ কমবে বলে আশাবাদী বজ্ঞিানীরা।
করোনার কারণে বশ্বিব্যাপী মহামারি পরস্থিতিি তরৈি হয়ছে।ে এই মহামাররি বরিুদ্ধে লড়াইয়ে নতুন আশার কথা শোনাচ্ছনে বজ্ঞিানীরা। তারা বলছনে, উষ্ণ এবং রৌদ্রজ্জ্বোল আবহাওয়া করোনার বস্তিার কময়িে আনতে সহায়তা করব।ে
শ্বাসযন্ত্ররে বশে কছিু সংক্রমণ আছে যা আবহাওয়া এবং বভিন্নি মৌসুমরে ওপর নর্ভির কর।ে কোভডি-১৯ যদি অন্যান্য সংক্রমণরে মতো হয় তবে সামনরে দনিগুলো করোনার বস্তিার কমাতে সহায়তা করব।ে এটা র্দীঘময়োদী না হলওে সাময়কি সময়রে জন্য স্বস্তি পাবে বশ্বি।
মরেল্যিান্ড ইন্সটটিউিট অব ভাইরোলজরি সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ সাজাদি বলনে, আমরা এখন র্পযন্ত যসেব তথ্য পয়েছেি তার ওপর ভত্তিি করে বলা যায় য,ে আবহাওয়া যখন উষ্ণ থাকে তখন মানুষ থকেে মানুষে ভাইরাসরে ছড়য়িে পড়া কঠনি হয়ে পড়।ে
অধ্যাপক সাজাদরি গবষেণা থকেে জানা যায়, এ ধরনরে ভাইরাস যে কোনো স্থানে বস্তিার লাভ করতে পার।ে তবে আদ্রতা এবং তাপমাত্রা কম থাকলে ভাইরাস দ্রুত বস্তিার লাভ করতে পার।ে বশিষে করে তাপমাত্রা ৫ ডগ্রিি সলেসয়িাস থকেে ১১ ডগ্রিি সলেসয়িাসরে মধ্যে থাকলে ভাইরাস সহজইে ছড়য়িে পড়তে পার।ে

অপরদকি,ে নতুন এক গবষেণা বলছ,ে র্আদ্রতা এবং তাপমাত্রা বাড়য়িে করোনার বস্তিার কমানো সম্ভব। এটা বশ্বিরে যে কোনো স্থানরে জন্যই প্রযোজ্য। সম্প্রতি নতুন এক গবষেণায় এ তথ্য জানানো হয়ছে।ে তবে শুধুমাত্র আবহাওয়া পরর্বিতনরে মাধ্যমইে এই ভাইরাসরে প্রকোপ একবোরে বন্ধ করা সম্ভব নয় বলওে উল্লখে করা হয়ছে।ে

চীনরে বইেহাং এবং সনিঘুয়া বশ্বিবদ্যিালয়রে একদল গবষেক বলছনে, চীনরে শতাধকি শহরে আবহাওয়া উষ্ণ এবং সখোনকার আদ্রতা বাড়তে থাকায় কোভডি-১৯য়রে প্রকোপ কমছে।ে

এক গবষেক লখিছেনে, উচ্চ তাপমাত্রা এবং আদ্রতায় দখো গছে,ে তাৎর্পযর্পূণভাবে কোভডি-১৯য়রে প্রকোপ কমছ।ে গণস্বাস্থ্য বশিষেজ্ঞরা বলছনে, উষ্ণ তাপমাত্রা, তাপ এবং আদ্রতা কবেলমাত্র ভাইরাসরে প্রকোপ কমাতে পার।ে কন্তিু এটা ভাইরাসরে বস্তিার বন্ধ করতে পারে না।

চীনে যখন এই ভাইরাসরে প্রকোপ ছড়য়িে পড়ছেলি তখন সখোনকার তাপমাত্রা কম ছলি। চারদকিে ঠান্ডা আর কম তাপমাত্রার কারণে ভাইরাসরে প্রকোপ খুব দ্রুত বৃদ্ধি পয়েছে।ে

গত সপ্তাহ থকেে চীনে এই ভাইরাসরে প্রকোপ কমতে শুরু করছে।ে সখোনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যাও কমছ।ে এটা দশেটরি জন্য অনকে বশে ইতবিাচক। কারণ এর মধ্যইে সখোনে বহু প্রাণহানরি ঘটনা ঘটছে।ে

গবষেকরা বলছনে, শীতকালীন আবহাওয়ায় ঠান্ডা, কাশি এবং জ্বররে মতো উপর্সগগুলো বড়েে যায়। এ সময় ভাইরাস খুব সহজইে বস্তিার লাভ করতে পারে এবং শরীরে হানা দতিে পার।ে কন্তিু তাপমাত্রা বৃদ্ধি পলেে ভাইরাস দ্রুত বস্তিার লাভ করতে পারে না।

এর আগে এক গবষেণায় বলা হয়ছে,ে ৮৬ ডগ্রিি ফারনেহাইট তাপমাত্রায় করোনাভাইরাস টকিে থাকতে পারে না। চীনা গবষেকরা বলছনে, প্রতি ডগ্রিি তাপমাত্রা বৃদ্ধতিে করোনার প্রকোপ কমার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। র্অথাৎ তাপমাত্রা যত বাড়বে ভাইরাসরে বৃদ্ধি তত ঠকোনো সম্ভব হব।ে তবে শুধুমাত্র তাপএমাত্রা বাড়য়িইে এই ভাইরাসরে বস্তিার একবোরে বন্ধ করা সম্ভব নয়।

Please follow and like us:
3