রবি. এপ্রি ২১, ২০১৯

ওষুধ সেবনের আগে যা জানা জরুরি

ওষুধ সেবনের আগে যা জানা জরুরি

Last Updated on

প্রত্যাশা ডেস্ক : ডাক্তারের চেম্বার থেকে বের হওয়ার আগে ওষুধ সম্পর্কে কয়েকটি প্রশ্ন করে বিস্তারিত জেনে নিন। অনেকেরই রোগ সেরে যাওয়ার কিংবা সামান্য সুস্থ বোধ করলেই ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দেওয়ার প্রবণতা আছে। চিকিৎসকের পরামর্শপত্রকে টেক্কা দিয়ে ডাক্তারি না করে চিকিৎসককেই আরও কিছু প্রশ্ন করে জেনে নিতে হবে তার লিখে দেওয়া ওষুধ সম্পর্কে। কী সেই প্রশ্ন? স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে সেই বিষয়ে জানানো হল।
কোন ওষুধের কী কাজ? চিকিৎসকের লিখে দেওয়া ওষুধ অন্ধ-বিশ্বাসে খাওয়া হয়। তবে কী ওষুধ? কেনো খাচ্ছি? এ ব্যাপারে কৌতুহল দেখানো দোষের কিছু নয়। তাই জেনে নিন তার দেওয়া ওষুধগুলো কীভাবে সুস্থ করবে। আর কেনোই বা এই ওষুধগুলো শারীরিক সমস্যার জন্য উপকারী।
পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে কি? যে ওষুধই খান না কেনো, তার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানা দরকারী। অনেক সময় চিকিৎসকরা নিজেরাই বলে দেন এ সম্পর্কে। তবে আপনার নিজের জানার আগ্রহ থাকা বেশি জরুরি। কারণ চিকিৎসক সবসময় সঙ্গে থাকবেন না, তাই সম্ভাব্য সমস্যাগুলো আগেই জেনে নিতে হবে।
কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বিপজ্জনক? মৃদু থেকে মারাত্বক, ওষুধের সবমাত্রার ও ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। এক ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সবাইকে তা আক্রমণও করে না। আবার প্রতিক্রিয়ার ধরনও ভিন্ন হতে পারে। তাই যে ওষুধগুলো দেওয়া হয়েছে তাদের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকলে কোনগুলো বিপজ্জনক সেটাই জেনে নিতে হবে। যাতে এমন কিছু দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে ফিরে যেতে পারেন।
ওষুধ খাওয়া বন্ধ করলে কী হবে? কিছু ওষুধ রোগ মুক্তির মাঝ পথে বন্ধ করে দিলে সমস্যা হয় না, আবার কিছু ওষুধ রোগ পুরোপুরি নিরাময় হয়ে গেলেও পুরো কোর্স পূর্ণ করতে হয়। কিছু ওষুধ আবার বিশেষ সমস্যা হলেই খেতে হয়। তাই পরামর্শপত্রের ওষুধগুলো সম্পর্কে এই বিষয়গুলো জেনে নেওয়া জরুরি। আবার কোনো রোগের উপর কোনো ওষুধের ক্ষতিকর প্রভাব আছে কিনা সেটাও জানতে হবে।
কখন খেতে হবে? ওষুধ সেবনের নিয়ম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। অনেকসময় নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে ওষুধ ব্যবহার না করার কারণে রোগ নিরাময়ে দেরি হতে পারে, এমনকি ওষুধ পুরোপুরি বৃথাও যেতে পারে। ডাক্তাররা সবসময়ই ওষুধ খাওয়ার সময় নির্ধারণ করে দেন, তবে আপনি তো ভুলে যেতেই পারেন। তাই ওষুধের সময়ানুবর্তীতা কতটা জরুরি সে বিষয় জেনে নিতে হবে।
কীভাবে খেতে হবে? অনেক সময় চিকিৎসকরা দুধের সঙ্গে মিশিয়ে বিশেষ কিছু ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দেন, যাতে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, হজমের সমস্যা, পাকস্থলিতে অস্বস্তি বা আলসার হওয়ার ঝুঁকি কমে। এ বিষয়েও চিকিৎসককে প্রশ্ন করে নিতে হবে।
কতদিন খাওয়া লাগবে? এটাও চিকিৎসকরা বলে দেন। তবে জানতে হবে ওষুধের প্রভাব চোখে পড়তে কতদিন সময় লাগবে। এতে রোগ নিরাময়ের ধারা নিজেই পর্যবেক্ষণ করা সম্ভব হবে।

Please follow and like us:
0